সোমবার থেকে বন্ধ স্কুল-কলেজ, সন্ধে ৭টার পর চলবে না লোকাল ট্রেন, রাজ্যে জারি কড়া কোভিড বিধিনিষেধ

Home Uncategorized সোমবার থেকে বন্ধ স্কুল-কলেজ, সন্ধে ৭টার পর চলবে না লোকাল ট্রেন, রাজ্যে জারি কড়া কোভিড বিধিনিষেধ
সোমবার থেকে বন্ধ স্কুল-কলেজ, সন্ধে ৭টার পর চলবে না লোকাল ট্রেন, রাজ্যে জারি কড়া কোভিড বিধিনিষেধ

বঙ্গভূমি লাইভ ডেস্ক: ওমিক্রনের দৌরাত্ম্যে করোনার বাড়বাড়ন্ত ঠেকাতে রাজ্য জারি হল কড়া কোভিড বিধি। রবিবার নবান্নে উচ্চপর্যায়ের বৈঠকের পর নতুন বছরের জন্য কোভিড বিধির ঘোষণা করলেন মুখ্যসচিব। আপাতত ১৫ জানুয়ারি অর্থাৎ দু’সপ্তাহের জন্য জারি থাকবে এঅই বিধিনিষেধ। পরে পরিস্থিতি বিবেচনা করে নতুন করে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন মুখ্যসচিব।

সোমবার থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ থাকছে রাজ্যের সব স্কুল-কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলিতে পড়ুয়াদের উপস্থিতিতে আপাতত পঠন-পাঠন হবে না। লোকাল ট্রেন চলাচলেও আংশিক নিষেধাজ্ঞা জারি হয়েছে। করোনার জেরে সন্ধে ৭টার পর থেকে রাজ্যে বন্ধ থাকবে সমস্ত লোকাল ট্রেন। বাকি সময়ে ৫০ শতাংশ যাত্রী নিয়ে চলবে পরিষেবা। মেট্রো চলাচলের সময়ে কাটছাঁট না হলেও যাত্রীসংখ্যা থাকবে ৫০ শতাংশ। নবান্নের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী সরকারি অফিসে দৈনিক হাজিরা থাকবে সর্বোচ্চ ৫০ শতাংশ। বেসরকারি  অফিস গুলিতেও একই নিয়ম প্রযোজ্য হল।বাজারদোকান,শপিং মল খোলা থাকবে রাত ১০টা পর্যন্ত। তবে প্রবেশাধিকার থাকবে ৫০ শতাংশের। রাত ১০টা থেকে ভোর ৫টা পর্যন্ত জারি থাকবে নৈশ বিধিনিষেধ। আর যাঁরা মুখে মাস্ক না পড়ে বেপরোয়া হয়ে নিজের বা অন্যের বিপদ ডেকে আনবেন, তাদের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেবে প্রশাসন।

উল্লেখ করা যেতে পারে, রাজ্যে কোভিড সংক্রমণ ক্রমশই বাড়ছে। পরিস্থিতি হাতের বাইরে বেরিয়ে যাওয়ার আগেই কড়া ব্যবস্থা নেওয়ার ইঙ্গিত দিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। রবিবার এ নিয়ে নবান্নে বৈঠক করেন স্বাস্থ্য দপ্তরের কর্তারা। সেখানেই লকডাউন এড়িয়ে কীভাবে মানুষকে নিরাপদ রাখা যায় তা নিয়ে আলোচনা চলে। সেখানেই ঠিক হয় সম্ভাব্য বিধিনিষেধ।এরপর রাজ্যের কোভিড পরিস্থিতি নিয়ে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে রাজ্যের মুখ্যসচিব হরিকৃষ্ণ দ্বিবেদী একগুচ্ছ বিধিনিষেধের কথা ঘোষণা করেন। যার মধ্যে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ হল ওমিক্রন ঠেকাতে ব্রিটেনের বিমান যাতায়াত বন্ধ করে দেওয়া। দ্বিবেদী বলেন, ‘সোমবার থেকে ব্রিটেনের কোনও বিমানকে শহরে ঢুকতে দেওয়া হবে না।’। এই মুহূর্তে দেশে করোনায় সবচেয়ে উদ্বেগজনক পরিস্থিতি রয়েছে মহারাষ্ট্র এবং দিল্লিতে। ফলে নবান্ন ঠিক করেছে, রাজধানী দিল্লি এবং বাণিজ্য নগরী মুম্বই থেকে কলকাতায় সোমবার ও শুক্রবার, সপ্তাহে দুটির বেশি উড়ান যাতায়াত করবে না।

 

একনজরে রাজ্যে জারি কোভিড বিধিনিষেধ

সোমবার থেকে রাজ্যের সব স্কুল, কলেজ এবং বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ থাকবে

সোমবার সন্ধ্যা ৭টার পর থেকে বন্ধ থাকবে লোকাল ট্রেন

দিনের বাকি সময়ে  ৫০ শতাংশ যাত্রী নিয়ে চলবে লোকাল ট্রেন

মেট্রো চলবে ৫০ শতাংশ যাত্রী নিয়ে

চিড়িয়াখানা সহ সব পর্যটন কেন্দ্র বন্ধ থাকবে

সরকারি এবং বেসরকারি অফিসে ৫০% কর্মী নিয়ে কাজ হবে

শহরে ঢুকতে পারবে না ব্রিটেনের বিমান

বিদেশ থেকে বিমানে এলেই যাত্রীদের আরটিপিসিআর পরীক্ষা করা হবে

মুম্বই ও দিল্লি থেকে সপ্তাহে দুটির বেশি উড়ান নয়(সোমবার ও শুক্রবার)

রাত ১০টা থেকে ভোর ৫টা পর্যন্ত জারি থাকবে নৈশ বিধিনিষেধ

গণপরিবহণে স্যানিটাইজেশন বাধ্যতামূলক

মাস্ক না পরলে কড়া ব্যবস্থা নেওয়া হবে

সোমবার থেকে বন্ধ থাকবে সুইমিং পুল, স্পা, জিম, বিউটিপার্লার, পার্ক, সেলুন

শপিং মল ও দোকানবাজার খোলা থাকবে রাত ১০টা পর্যন্ত

শপিং মল, বাজারে ৫০ শতাংশ প্রবেশ

রাত ১০টার পর বন্ধ সিনেমা হল, বাকি সময়ে ৫০ শতাংশ দর্শক

রেস্তরাঁ, পানশালাও ৫০ শতাংশ গ্রাহক নিয়ে খোলা থাকবে

সমস্ত রকম সামাজিক, ধর্মীয় ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে ৫০ জনের বেশি জমায়েত নয়

বিয়েবাড়িতে সর্বাধিক উপস্থিতি ৫০ জন

বৈঠক-সভা-সমাবেশে সর্বাধিক ২০০ জন বা হলের আসন সংখ্যার ৫০ শতাংশ (যা হিসেবে কম)উপস্থিতি 

মৃতদেহ নিয়ে যেতে পারে সর্বোচ্চ ২০ জন

৫-এর বেশি করোনা আক্রান্ত হলে মাইক্রো কনটেনমেন্ট জোন

চলতি সপ্তাহে সোমবার রাজ্যে দৈনিক সংক্রমণ ছিল ৪৩৯। শনিবার তা সাড়ে চার হাজার ছড়ায়ে যায়। অর্থাৎ বাংলায় গত ছয় দিনে দৈনিক করোনা আক্রান্তের সংখ্যায় ১০ গুণ বৃদ্ধি হয়েছে। এমনকী রাজ্যে দৈনিক সংক্রমণের হারও ১২ শতাংশ ছাড়িয়েছে। শুধু কলকাতাতেই দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়িয়েছে দু’হাজার। পাল্লা দিয়ে অস্বাভাবিক হারে সংক্রমণ বাড়ছে মহানগরী সংলগ্ন হাওড়া, হুগলি, উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনায়।এদিন মুখ্যসচিব আরও জানিয়ে দেন, রাজ্যে কোনো এলাকায়, পাঁচজনের বেশি করোনা আক্রান্ত হলেই, তা মাইক্রো কনটেনমেন্ট জোন হিসেবে চিহ্নিত করে সিল করে দেওয়া হবে। এ পর্যন্ত কলকাতার ১১টি স্পটকে কনটেনমেন্ট জোন হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। পিছিয়ে দেওয়া হল দুয়ারে সরকার কর্মসূচি। ২ জানুয়ারির পরিবর্তে তা শুরু হবে ১ ফেব্রুয়ারি।

এরই  মধ্যে আগামী ২২ তারিখ রাজ্যের চার পুরনিগমে ভোট। তার ভবিষ্যৎ কী হবে, সে নিয়ে কোনও প্রতিক্রিয়া দেয়নি নবান্ন। এই সংক্রান্ত সিদ্ধান্ত ছাড়া হয়েছে রাজ্য নির্বাচন কমিশনের উপরই।

Leave a Reply

Your email address will not be published.