Up election 2022: ভালোয় ভালোয় মিটল উত্তরপ্রদেশের শেষদফার ভোট, ভাগ্য নির্ধারণ বহু মন্ত্রীর

Home দেশের মাটি Up election 2022: ভালোয় ভালোয় মিটল উত্তরপ্রদেশের শেষদফার ভোট, ভাগ্য নির্ধারণ বহু মন্ত্রীর
Up election 2022: ভালোয় ভালোয় মিটল উত্তরপ্রদেশের শেষদফার ভোট, ভাগ্য নির্ধারণ বহু মন্ত্রীর

বঙ্গভূমি লাইভ ডেস্ক: উত্তরপ্রদেশ বিধানসভা নির্বাচন, ২০২২-এর (up election, 2022) সপ্তম তথা শেষ দফা অনুষ্ঠিত হল সোমবার ৭ মার্চ। এদিনের ভোটাভুটির মধ্য দিয়েই পাঁচ রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচনের ভোটগ্রহণ সমাপ্ত হল। এরপরে আগামী ১০ মার্চ বৃহস্পতিবার ফলাফল প্রকাশিত হবে। তবে তার আগে এদিন সন্ধ্যায়, ভোটগ্রহণ সমাপ্ত হওয়ার পরে বুথ ফেরত সমীক্ষার ফল প্রকাশিত হয়। সেখানে বিভিন্ন সংস্থার ফলাফলে কে কোন রাজ্যে এগিয়ে থাকে বা সরকার গড়ার জায়গায় থাকে তার একটা আভাস পাওয়া যেতে পারে। তবে ভোটের আগে বিভিন্ন সমীক্ষা যোগীর মুখের হাসি চওড়া করেছে।

সোমবার উত্তরপ্রদেশের নির্বাচন, ২০২২-এর (up election, 2022) সপ্তম দফার ভোটগ্রহণ। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর  লোকসভা কেন্দ্র বারাণসী এবং এর আশেপাশে অঞ্চলে নির্বাচনী লড়াইয়ের দিকে চোখ ছিল সোমবার। উত্তর প্রদেশের (uttar pradesh) বারাণসী এবং এর আশেপাশের আটটি জেলার জন্য সপ্তম এবং চূড়ান্ত রাউন্ডের ভোট হল এদিন। মোটের ওপর নির্বিঘ্নেই মিটল উত্তর প্রদেশ ভোটপর্ব, ২০২২ (up election, 2022)।

সপ্তম পর্বে যোগী আদিত্যনাথের নেতৃত্বাধীন উত্তর প্রদেশ সরকারের অনেক বরিষ্ঠ মন্ত্রীদের নির্বাচনী ভাগ্য নির্ধারণ হল। এই তালিকায় রয়েছেন অনগ্রসর শ্রেণি কল্যাণ মন্ত্রী অনিল রাজভর, সংস্কৃতিমন্ত্রী (স্বাধীন দায়িত্ব) নীলকান্ত তিওয়ারি, আবাসন ও নগর পরিকল্পনা মন্ত্রী গিরিশ যাদব, স্ট্যাম্প, কোর্ট ফি এবং নিবন্ধন বিভাগের প্রতিমন্ত্রী (স্বাধীন দায়িত্ব) রবীন্দ্র জয়সওয়াল সহ বেশ কয়েকজন সিনিয়র মন্ত্রী।

অন্যান্য বিশিষ্ট মন্ত্রীরা হলেন বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী রমাশঙ্কর সিং প্যাটেল, সমবায় প্রতিমন্ত্রী সঙ্গীতা যাদব বলওয়ান্ত এবং প্রতিমন্ত্রী সঞ্জীব গোন্ড।

শেষ দফায় প্রাক্তন ক্যাবিনেট মন্ত্রী দারা সিং চৌহানের মতো বিজেপির বিদ্রোহীদের ভাগ্যও নির্ধারণ হবে। দারা সিং এবারের নির্বাচনে সপা (SP) প্রার্থী হিসাবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। দুর্গা প্রসাদ যাদব। এই সপ্তম দফার নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী আরেক গুরুত্বপূর্ণ প্রার্থী। অন্যান্য পরিচিত প্রার্থীরা হলেন আলামবাদি আজমি, ললাই থেকে শৈলেন্দ্র যাদব, বিজয় মিশ্র, ওমপ্রকাশ রাজভার, তুফানি সরোজ, ধনঞ্জয় সিং এবং মাফিয়া মুখতার আনসারির ছেলে আব্বাস।

বারাণসী ছাড়াও, উত্তর প্রদেশ নির্বাচন, ২০২২ (up election) – এর শেষ দফার ভোটে হল আজমগড় এবং বিন্ধ্যাচল অঞ্চলে। আজমগড়, মৌ, জৌনপুর, গাজিপুর, চান্দৌলি, মির্জাপুর, ভাদোহি এবং সোনভদ্রের ৫৪টি আসনের ভোট হচ্ছে।

বিশেষ করে সমাজবাদী পার্টির সঙ্গে একটি কঠিন নির্বাচনী লড়াইয়ে জরিয়ে থাকা বিজেপির জন্য শেষ দফার এই ৫৪টি নির্বাচনী ক্ষেত্রের মধ্যে সংখ্যাগরিষ্ঠ আসনে জয়লাভ করা প্রয়োজন। “মোদী ঢেউ”-এর উপর নির্ভর করে, বিজেপি-নেতৃত্বাধীন জোট ২০১৭ সালে বারাণসীর আটটি বিধানসভা বিভাগে জিতেছিল এবং প্রতিবেশী জেলাগুলির সংখ্যাগরিষ্ঠ আসনেও তাই হয়।

সাত নম্বর পর্বের আসনগুলি বিজেপি (bjp) এবং এসপির শক্ত ঘাঁটি নিয়ে গঠিত, উভয় পক্ষই অপরটিকে টপকে যাওয়ার জন্য প্রস্তুত। লড়াই হয় সেয়ানে সেয়ানে। বিজেপির এইবার জোড় দিয়েছে আজমগড়ের দিকে কারণ, এটি একটি এসপি’র ঘাঁটি। গত বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপি যেখানে ওই রাজ্যে ৩২৫টি আসন জিতেছিল সেখানে সত্ত্বেও ২০১৭ সালে তারা এই আজমগড়ের ১০টি আসনেই হেরে গিয়েছিল।

তাই এবার বিজেপির (bjp) সমস্ত শীর্ষ নেতারা এখানে প্রচার করেবম, এখানকার জেলায় জেলায় গিয়ে মিছিল করেন। এসপি, পালাক্রমে, বারাণসী জেলায় একটি সাহসী অভিযান করেছিল যেখানে ২০১৭ সালে ৮টি আসনই এনডিএ-র দখলে ছিল। এখানে অখিলেশ যাদব প্রচারের জন্য এসেছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাই এই উভয় শিবির লক্ষ্য রেখেছে ১০ মার্চকে। বারাণসীতে প্রধানমন্ত্রীর (prime minister) ২দিনের প্রচার যা পূর্বাঞ্চলের মেজাজ নিয়ে করেছিলেন তা বিজেপি শিবিরে অক্সিজেন জুগিয়েছিল।

আসলে বিজেপির অনেকেই বারাণসীতে বসা প্রার্থীদের বিরুদ্ধে ক্ষমতা বিরোধিতা নিয়ে উদ্বিগ্ন ছিলেন এবং এখানে যে কোনও হার একটি ভুল বার্তা পাঠাবে। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী মোদির (modi) রোডশোর পরে সেই ভয়গুলি দূর হয়ে গিয়েছিল যার সাফল্য দলের নেতাদের আশ্বস্ত করেছে। একজন সিনিয়র বিজেপি নেতা বলেছেন, লোকেরা প্রধানমন্ত্রীর অনুরোধে মনোযোগ দেবে এবং আমাদের জন্য ভোট দেবে, এসপি শিবিরে, অখিলেশ যাদবের সমাবেশ এবং রোড শোতে বিশাল জনসমাগম ফলাফলের পক্ষে তার আস্থা এবং উত্সাহের প্রতিফলন।

যাদব যেখানেই যান, সমাবেশে, মিটিংয়ে এমনকি বারাণসীতে তার হোটেলেও ভিড় করেন। এসপি শিবির বিশ্বাস করে যে লোকেরা মূল্যবৃদ্ধি এবং বেকারত্বের মতো ইস্যুতে অখিলেশের পাশে দাঁড়াবে। কিন্তু বিজেপি অখিলেশের সমাবেশে শুধুমাত্র যুবকদের ভিড়ের দিকে ইঙ্গিত করে এবং মহিলারা ছবি থেকে আপাতদৃষ্টিতে অনুপস্থিত বলে মনে হচ্ছে কারণ সমাবেশগুলি সর্বদা অশান্ত হয়ে যায়।
স্টার প্রচারকদের অনেকে বিজেপির (bjp) সমাবেশে গিয়েছিল, সামনের সারিগুলি মহিলাদের জন্য সংরক্ষিত ছিল তাদের ভালো সংখ্যায় দেখা গিয়েছিল৷ বিজেপি নেতারা জানিয়েছেন, প্রধানমন্ত্রীর জনসভায় এক লাখেরও বেশি হয়েছিল। ভালোয় ভালোয় মিটল পাঁচ রাজ্যের ভোট। উত্তরপ্রদেশ ভোটও (up election, 2022) মিটল ভালোয় ভালোয়। ২১ এর সেমিফাইনালে কে কোন জায়গায় দাঁড়িয়ে তা জানার জন্য বৃহস্পতিবার পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.