‘আপনি কখনই বাইরের মানুষ নন’, মুসলিম মহিলাকে অভয়বাণী থেইয়াম নৃত্যশিল্পীর

Home দেশের মাটি ‘আপনি কখনই বাইরের মানুষ নন’, মুসলিম মহিলাকে অভয়বাণী থেইয়াম নৃত্যশিল্পীর
‘আপনি কখনই বাইরের মানুষ নন’, মুসলিম মহিলাকে অভয়বাণী থেইয়াম নৃত্যশিল্পীর

বঙ্গভূমি লাইভ ডেস্ক: দেশজুড়ে এখনও অব্যাহত হিজাব বিতর্ক। আর এর মধ্যেই কেরলের মুথাপ্পন মন্দিরের একটি ভিডিও ভাইরাল হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, মুথাপ্পন মন্দিরের একজন থেইয়াম নৃত্যশিল্পী ভিড়ের মধ্যে থেকে একজন মুসলিম মহিলাকে দেখতে পেয়ে তাঁর কাছে গিয়ে কথা বলছেন। সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়ার পর নেটিজেনরা প্রশংসায় ভরিয়ে দিয়েছেন থেইয়াম শিল্পীকে। হিজাব বিতর্কের মধ্যেই থেইয়াম নৃত্যশিল্পীর এই কাজ যথেষ্ট প্রশংসাযোগ্য, এমনটাই দাবি তাদের।

কেরলের কান্নুর, কোঝিঝোড় ও মালাপুরম অঞ্চলে এবং কর্নাটকের কয়েকটি অঞ্চলে সাধারণত মুথাপ্পন দেবতার উপাসনা করা হয়। মুথাপ্পন দুই হিন্দু দেবতা তিরুভাপ্পান বা ভ্যালাইয়া মুথাপ্পন (বিষ্ণু) ও ভেলাটোম বা চেরাইয়া মুথাপ্পনের (শিব) মূর্তি হিসাবে পূজিত হন। বিষ্ণুর মাথার মুকুটটি মাছের আকৃতির ও শিবের মাথার মুকুটটির আকৃতি অর্ধচন্দ্রাকার। যে মন্দিরে মুথাপ্পন দেবতা পূজিত হন, তাকে বলা হয় মাদপ্পুরা। মুথাপ্পান দেবতার সঙ্গে সবসময় একটি কুকুর থাকে। কুকুরকে এখানে পবিত্র মনে করা হয়। মুথাপ্পান মন্দিরের আশেপাশে প্রচুর কুকুর দেখতে পাওয়া যায়। মন্দিরের প্রবেশদ্বারে দুটি খোদাই করা ব্রোঞ্জের কুকুর রয়েছে যা ঈশ্বরের দেহরক্ষীদের প্রতীক বলে বিশ্বাস করা হয়। যখন প্রসাদ প্রস্তুত হয়, এটি সর্বপ্রথমে একটি কুকুরকে পরিবেশন করা হয়। তারপর সেই প্রসাদ বিতরণ করা হয় দেবতার উদ্দেশে।মুথাপ্পন মন্দিরগুলির মধ্যে প্যারাসিনিকাদাভু মাদপ্পুরা মন্দিরের নাম সর্বাধিক পরিচিত। মুথাপ্পন মন্দিরের সবথেকে বড় বৈশিষ্ট্য হলো, এই মন্দিরের আচার আচরণ ও রীতিনীতি কেরলের বাকি মন্দিরগুলির থেকে অনেকাংশে পৃথক। এই মন্দিরের রীতিনীতিগুলি শাক্ত রীতির সঙ্গে সম্পর্কযুক্ত। এই মন্দিরের পূজারীরা দেবতাকে সুরা বা মদ এবং মাছ-মাংস ভোগ হিসাবে দেন। কেরলের অধিকাংশ মন্দিরে অহিন্দুদের প্রবেশ নিষেধ, কিন্তু মুথাপ্পন মন্দির এই দিক থেকে অনেক উদার। এই মন্দিরে সব ধর্মের মানুষ প্রবেশ করতে পারেন। কেরলের থেইয়ার সম্প্রদায়ের মানুষরাই এই লোকনৃত্য প্রদর্শন করেন।

কেরলের বালিয়াপরম্বা গ্রাম পঞ্চায়েতের পদ্মকাদমম্পুরম মন্দিরে ঘটেছে এই ঘটনা। জানা গিয়েছে, হিজাব পরা ওই মুসলিম মহিলার নাম রামলাথ। রামলাথের স্বামী দু’বছর আগে মুম্বইয়ে কাজ হারিয়েছেন। বর্তমানে প্রবল আর্থিক দুরবস্থার মধ্যে আছেন তিনি। তাঁর বাড়ির পাশের মন্দিরে থেইয়াম নৃত্য অনুষ্ঠিত হওয়ার খবর পেয়ে তিনি সেই নৃত্যানুষ্ঠান দেখতে যান। ভিড়ের মধ্যে এক কোণে দাঁড়িয়ে ছিলেন ওই মুসলিম মহিলা। তা লক্ষ্য করেন থেইয়াম নৃত্যশিল্পী। নৃত্যানুষ্ঠান শেষ হওয়ার পর মুসলিম মহিলার সঙ্গে দেখা করেন নৃত্যশিল্পী। তিনি বলেন, ‘আপনি বাইরের কেউ নন, আমাদেরই একজন। এদিকে আসুন। আপনি কি ভাবছেন আপনার ধর্ম কিংবা জাতের কারণে আপনি আলাদা?’ থেইয়াম নৃত্যশিল্পীর প্রশ্নের উত্তরে মাথা নাড়িয়ে অসম্মতি প্রকাশ করেন রামলাথ। পরে মুথাপ্পন সংস্কৃতি সম্পর্কে রামলাথকে জিজ্ঞাসাও করেন ওই নৃত্যশিল্পী। ইসলাম ধর্মাবলম্বী মানুষরাও দিনে পাঁচবার নামাজ পড়ে নিজেদের ধর্মীয় কর্তব্য পালন করেন, এমনটাই জানান থেইয়াম নৃত্যশিল্পী। ‘আপনারাও আপনাদের মতো করে ধর্মীয় কর্তব্য পালন করেন। নিজের ধর্মের ওপর বিশ্বাস রাখুন’, বলেছেন থেইয়াম নৃত্যশিল্পী।মুহূর্তেই ভাইরাল হয়ে যায় নৃত্যশিল্পীর সঙ্গে ওই মহিলার কথোপকথনের ভিডিও। ফেসবুকে ভিডিওটি পোস্ট করেন কে.ভি. রাজু নামক জনৈক ব্যক্তি। সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়ার সঙ্গে সঙ্গে ভিডিওটিতে একের পর এক কমেন্ট করতে থাকেন বহু মানুষ। বহু নেটিজেন তা শেয়ারও করেন। পরে কে.ভি. রাজুকে এই বিষয়ে জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি জানান তাঁর গ্রামের ঐতিহ্যবাহী সংস্কৃতিকে গোটা বিশ্বের সামনে তুলে ধরার জন্যই এই ভিডিওটি সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করেছিলেন তিনি।

প্রসঙ্গত, থেইয়াম নৃত্য হলো কেরল ও কর্নাটকের একটি জনপ্রিয় আচার-অনুষ্ঠান। এই নৃত্যানুষ্ঠানে হাজার হাজার বছরের ঐতিহ্য, আচার ও রীতিনীতি রয়েছে। কেরল ও কর্নাটকের মানুষেরা এই নৃত্যানুষ্ঠানের মাধ্যমে দেবতার কাছে আশীর্বাদ চায়। এই দুই রাজ্যে বিভিন্ন ধরনের থেইয়াম নৃত্য প্রচলিত, যেমন দেবকুথু থেইয়াম নৃত্য কেবলমাত্র মহিলারাই করে থাকেন। দেবকুথু থেইয়াম ব্যতীত বাকি থেইয়াম নৃত্যানুষ্ঠান পুরুষরা করে থাকেন। দেবকুথু থেইয়াম নৃত্য শুধুমাত্র থেক্কুম্বাদ কুলোম মন্দিরে করা হয়। এই নৃত্য কেরল ও কর্নাটকের লোকসংস্কৃতি ও লোকধর্মেরই অঙ্গ। ভেট্টক্কোরমাকান, বিষ্ণুমূর্তি থেইয়াম, মুচিলোট ভগবতী থেইয়াম এবং শ্রী মুথাপ্পান সহ চারশো ধরনের থেইয়াম রয়েছে এই দুই রাজ্য জুড়ে।প্রায় দু’ সপ্তাহ পেরিয়ে গেলেও এখনও হিজাব-বিতর্কের আঁচ মেটেনি। দেশজুড়ে এখনও চলছে বিক্ষোভ। এরই মধ্যে কেরলের মুথাপ্পান মন্দিরের থেইয়াম নৃত্যশিল্পীর এই উদারতা মুগ্ধ করেছে নেটিজেনদের। অনেকে মনে করছেন, দেশজুড়ে যে সাম্প্রদায়িকতার বিষবাষ্প দিনের পর দিন ছড়িয়ে পড়ছে, এই ঘটনা তার সম্পূর্ণ বিপরীতে দাঁড়িয়ে ভারতবর্ষের আরও একবার হিন্দু-মুসলমান সম্প্রীতির বার্তাই পৌঁছে দিলো।

Leave a Reply

Your email address will not be published.