ইউক্রেনে(Russia’s invasion of Ukraine)ভারতীয়দের গাড়িতে তিরঙ্গা লাগানোর কোনও পরামর্শই দেয়নি রাশিয়া, পুরোটাই গুজব! কার স্বার্থে?

Home বিদেশ-বিভূঁই ইউক্রেনে(Russia’s invasion of Ukraine)ভারতীয়দের গাড়িতে তিরঙ্গা লাগানোর কোনও পরামর্শই দেয়নি রাশিয়া, পুরোটাই গুজব! কার স্বার্থে?
ইউক্রেনে(Russia’s invasion of Ukraine)ভারতীয়দের গাড়িতে তিরঙ্গা লাগানোর কোনও পরামর্শই দেয়নি রাশিয়া, পুরোটাই গুজব! কার স্বার্থে?

বঙ্গভূমি লাইভ ডেস্ক: রুশ-ইউক্রেন যুদ্ধে(Russia’s invasion of Ukraine)সমান্তরাল ক্ষতির মুখে পড়েছে ভারতও। ইতিমধ্যেই বোমা হামলায় প্রাণ হারিয়েছেন কর্নাটকের ডাক্তারি পড়ুয়া নবীন শেখরাপ্পা। অনাহার-অর্ধাহারে কাতর সীমান্তে পৌঁছতে অপারগ বহু ছেলেমেয়ে। এই অবস্থায় যুদ্ধভূমি থেকে প্রবাসী ভারতীয়দের অনেককে ফেরানো হলেও বহু ছাত্র-ছাত্রীই এখনও বিপন্ন অবস্থায় আটকে। ইউক্রেনের(Ukraine) ভারতীয়দের নিয়ে এই আবহেই বহু বিভ্রান্তিমূলক প্রচার ছড়াচ্ছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। ইতিমধ্যেই ভীষণভাবে ভাইরাল হয়েছে একটি ছবি যেখানে বলা হচ্ছে প্রবাসী ভারতীয় বা অর্থাৎ ইউক্রেনে বসবাসকারী ভারতীয়রা যদি সীমান্তের পৌঁছানোর জন্য নিজেদের গাড়িতে ভারতীয় তিরঙ্গা পতাকা(Indian Flag) লাগিয়ে রাখেন তবে রুশসেনা বিনা প্রশ্নে তাঁদের রাস্তা ছেড়ে দিচ্ছে ।

ভাইরাল হওয়া ওই গ্রাফিক্স ছবিতে দেখা যাচ্ছে রাশিয়ার(Russia)প্রতিরক্ষামন্ত্রী সের্গেই শোইগুর মুখ। সেই ছবির নিচে আবার হিন্দিতে লেখা রয়েছে, ইউক্রেনে যে ভারতীয়রা বাড়ি এবং গাড়ির ওপর তিরঙ্গা পতাকা(Indian Flag) লাগিয়ে রাখবেন, রুশ সেনা তাদের কোনো রকম বাধা তো দেবেই না বরং রাশিয়ার সেনাবাহিনীর(Russia’s invasion of Ukraine) সার্চ স্কোয়াড নিজেরাই উদ্যোগী হয়ে, সেই সকল ভারতীয়কে নিরাপদ স্থানে পৌঁছে দেবে। এই ঘোষণার নিচে ইংরেজিতে প্রতিরক্ষা মন্ত্রী সের্গেই শোইগুর নাম এবং তাঁর পদেরও উল্লেখ রয়েছে। এর ঠিক নিচেই আবার হিন্দিতে লেখা রয়েছে ‘কুছ তো দম হ্যায় হমারে চায় ওয়ালে মেঁ।’ অর্থাৎ অতি স্পর্শকাতর মুহুর্তেও চলছে সরাসরি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির গুণকীর্তন। মোদির ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করার এ হেন প্রয়াস চালানো হয়েছে, রুশ প্রতিরক্ষামন্ত্রীর নাম করে। আর পরোক্ষে চেষ্টা চালানো হয়েছে, রাশিয়া(Russia) যুদ্ধক্ষেত্রেও বন্ধুরাষ্ট্র ভারতকে যে প্রাপ্য মর্যাদা দিচ্ছে তা সবই সম্ভব হয়েছে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি থাকার দরুনই। এই ছবিটি ছড়িয়ে দেওয়া হচ্ছে এদেশের অত্যন্ত জনপ্রিয় সোশ্যাল প্ল্যাটফর্ম ফেসবুক এবং টুইটার এর মাধ্যমে, রুশ প্রতিরক্ষামন্ত্রীর মুখে বসিয়ে দিয়ে একই দাবি ছড়িয়ে দেওয়া হচ্ছে। যেখানে সরাসরি রুশ প্রতিরক্ষামন্ত্রী সের্গেই শোইগু, ইউক্রেনে বসবাসকারী ভারতীয়দের উদ্দেশে বলছেন সেভ প্যাসেজ অর্থাৎ নিরাপদে ইউক্রেন(Russia’s invasion of Ukraine)ছাড়ার জন্য, সকলে যেন নিজেদের গাড়িতে ভারতের পতাকা(Indian Flag)পরিচয়ের চিহ্ন হিসেবে লাগিয়ে রাখেন।

কিন্তু এরপরেও কোথাও একটা মিসিং লিঙ্ক রয়েই যায়। তাই এহেন দাবির সত্যাসত্য যাচাই করতে বসে একটি জাতীয়স্তরের ইংরাজি ডিজিটাল সংবাদমাধ্যম। প্রথমেই তাদের খোঁজ শুরু হয় রাশিয়া বিদেশমন্ত্রকের ওয়েবসাইট দিয়ে। ওয়েবসাইটটি তন্ন তন্ন করে খুঁজেও এ ধরনের কোনো তথ্যই তাদের নজরে না পড়ায় দেখা হয়  রাশিয়ার বিভিন্ন অফিসিয়াল মিডিয়া হ্যান্ডেল। সেগুলিতেও এ ধরনের কোনো কিছুরই উল্লেখ মেলেনি। ফলে সের্গেই-র মুখে যে কথা বসানো হয়েছে তার প্রমাণের তল পাওয়া যায়নি। এরপর দ্বিতীয় ধাপে সাংবাদিকরা রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের ওয়েবসাইটটি খুঁজতে শুরু করেন। তখনও একইভাবে নিরাশ হতে হয়। এমনকী কাছাকাছি কোনও তথ্যও মেলেনি রাশিয়ায় অবস্থিত ভারতীয় দূতাবাসের ওয়েবসাইট থেকেও। এরপর তৃতীয় ধাপে পোক্ত না হলেও, সামান্য সূত্র নজরে আসে। তা হল ইউক্রেনে অবস্থিত ভারতীয় দূতাবাসের একটি ট্যুইট। গত ২৫ ফেব্রুয়ারি, দূতাবাসের তরফে জারি নির্দেশিকায় ভারতীয়দের বলা হয়েছে, ইউক্রেন ভূখণ্ডে ( Russia’s invasion of Ukraine) চলাফেরার সময়, অবশ্য করে যেন, নিজেদের গাড়ির সামনে ভারতীয় তিরঙ্গা(Indian Flag) লাগিয়ে রাখেন। উল্লেখ্য ইউক্রেনকে(Ukraine) ঘিরে রয়েছে পোল্যান্ড, রোমানিয়া এবং হাঙ্গেরি। এই তিনটি রাষ্ট্রের মাধ্যমেই ভারতীয়দের দেশে ফিরিয়ে আনা হচ্ছে। ফলে প্রবাসী ভারতীয়দের লক্ষ্য যেন তেন প্রকারেণ কোনও একটি দেশের সীমান্তে পৌঁছানো। এছাড়াও ভারতীয় দূতাবাসের তরফে আরও বলা হয়েছে, সকলে সবসময় যেন নিজেদের পাসপোর্ট নিয়ে ঘোরেন। সঙ্গে রাখেন ন্যূনতম জরুরী জিনিসপত্র এবং খাবার বা পানীয় জল কেনার জন্য পর্যাপ্ত অর্থ।

কিন্তু এতকিছুর পরও রাশিয়ার পক্ষ থেকে ভারতীয়দের গাড়িতে নিজেদের দেশের জাতীয় পতাকা লাগিয়ে রাখার মতো পরামর্শের কোন উল্লেখ খুঁজে পাওয়া যায় না। তবে এ দেশের বিভিন্ন মিডিয়া রিপোর্টে চোখ রাখলে দেখা যাচ্ছে ইউক্রেনের ভারতীয় দূতাবাসের তরফে সেদেশে পড়তে যাওয়া ছেলেমেয়েদের জন্য জারি করা হয়েছে নতুন নির্দেশিকা। যেখানে বলা হয়েছে নিজেদের গাড়িতে নিরাপত্তার খাতিরে ভারতের জাতীয় পতাকা লাগিয়ে রাখাই শ্রেয়। বেশ কয়েকটি জাতীয় সংবাদ গোষ্ঠী, সংবাদ সংস্থা এবং গুরুত্বপূর্ণ কিছু ডিজিটাল নিউজ মিডিয়াও এই খবর প্রচার করেছে।

সংবাদ সংস্থা এএনআই কে দেওয়া সাক্ষাৎকারে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী জি কিষান রেড্ডি বলেছেন,  ইউক্রেনে পড়তে যাওয়া ভারতীয় ছেলেমেয়েদের গাড়িতে জাতীয় পতাকা এমনভাবে লাগিয়ে রাখেন যাতে তা সকলের চোখে পড়ে। একই সঙ্গে তাঁর আশ্বাস ইউক্রেনে(Russia’s invasion of Ukraine) আটকে থাকা ভারতীয়দের যথাসম্ভব দ্রুত দেশের মাটিতে ফিরিয়ে আনার চেষ্টা হচ্ছে। একই সঙ্গে উদ্বিগ্ন বাবা-মায়েদের কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর সান্ত্বনা, সকলের সন্তান সুরক্ষিত এবং নিরাপদেই দেশে ফিরবেন। তবে কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর মুখেও রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রীর এধরনের কোনও আশ্বাসের পুনরুক্তি শোনা যায়নি।

সংশ্লিষ্ট ডিজিটাল সংবাদমাধ্যমের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, তারা যে তদন্তমূলক রিপোর্টিং করেছেন তাতে কখনোই প্রমাণিত হয়নি যে রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রী সের্গেই শুইগো, ভারতীয় নাগরিকদের নিজেদের গাড়িতে তিরঙ্গা রাখার পরামর্শ দিয়েছেন। এই মর্মে যা সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে তা পুরোপুরি বিভ্রান্তি মূলক এবং রটনা। রুশ সরকারের পক্ষ থেকে ভারতীয়দের উদ্দেশে এরকম কোন নির্দেশিকা জারি করাই হয়নি বরং ইউক্রেনে অবস্থিত ভারতীয় দূতাবাস সেদেশে আটকে পড়া( Russia’s invasion of Ukraine)নিজের নাগরিকদের নিরাপত্তার খাতিরে সীমান্তে পৌঁছানোর জন্য ব্যবহারকারী গাড়িতে ভারতের জাতীয় পতাকা লাগানোর পরামর্শ দিয়েছে। রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের মতে, এই স্পর্শকাতর’ মুহূর্তে সুকৌশলে এ হেন গুজব ছড়িয়ে দেওয়ার একটাই অর্থ, নরেন্দ্র মোদির ৫৬ ইঞ্চির ছাতির বহর আরও একটু বাড়িয়ে দেওয়া।

Leave a Reply

Your email address will not be published.