Russia Ukraine war: নিজেদের স্বার্থে পুতিনকে বলুন যুদ্ধ বন্ধ করতে, ভারতের কাছে ইউক্রেনের আর্জি

Home বিদেশ-বিভূঁই Russia Ukraine war: নিজেদের স্বার্থে পুতিনকে বলুন যুদ্ধ বন্ধ করতে, ভারতের কাছে ইউক্রেনের আর্জি
Russia Ukraine war: নিজেদের স্বার্থে পুতিনকে বলুন যুদ্ধ বন্ধ করতে, ভারতের কাছে ইউক্রেনের আর্জি

বঙ্গভূমি লাইভ ডেস্ক: রাশিয়া ইউক্রেন যুদ্ধের (Russia Ukraine war) প্রভাব পড়েছে সারা বিশ্বে। তাই ইউক্রেন চাইছে ভারত যাতে পুতিনকে যুদ্ধ বন্ধ করতে বলে। রাশিয়ার বিরুদ্ধে নতুন দফা নিষেধাজ্ঞার দাবি করে, ইউক্রেনের বিদেশমন্ত্রী দিমিত্রো কুলেবা শনিবার ভারত (India) সহ বেশ কয়েকটি দেশের সরকারকে রাশিয়ার কাছে যুদ্ধ বন্ধ করার জন্য আবেদন করার আহ্বান জানিয়েছেন।

একটি টেলিভিশন ভাষণে, কুলেবা রাশিয়াকে যুদ্ধবিরতি চুক্তি লঙ্ঘনের দায়ে অভিযুক্ত করে এবং বিদেশী ছাত্র সহ সাধারণ নাগরিকদের সংঘর্ষের এলাকা ছেড়ে যাওয়ার অনুমতি দেওয়ার জন্য রাশিয়া ইউক্রেন যুদ্ধ (Russia Ukraine war) বন্ধ করার আহ্বান জানায়।

তিনি বলেন, ৩০ বছর ধরে, ইউক্রেন আফ্রিকা, এশিয়ার হাজার হাজার ছাত্রদের স্বাগত জানিয়েছে… তাঁদের (বিদেশী ছাত্রদের) চলাচলের সুবিধার্থে, ইউক্রেন ট্রেনের ব্যবস্থা করেছে, হটলাইন স্থাপন করেছে, দূতাবাসের সঙ্গে কাজ করেছে… ইউক্রেন সরকার তাদের সেরাটা করার চেষ্টা করছে।

তিনি বলেন যে রাশিয়া যদি বিদেশী শিক্ষার্থীদের ইস্যুকে “ব্যবহার” করা বন্ধ করে তবে তাঁদের সবাইকে নিরাপদে সরিয়ে নেওয়া হবে। আমি ভারত, চীন এবং নাইজেরিয়ার সরকারকে আহ্বান জানাই, রাশিয়ার কাছে গোলাবর্ষণ বন্ধ করতে এবং সাধারণ মানুষদের এলাকা ছেড়ে যাওয়ার অনুমতি দিতে।

তিনি বলেন যে, তারা ওই সেফ করিডর করছে। দেখাচ্ছে তারা মানবতার পক্ষে। আদতে সেটা নয়, আমি ভারত, চিন এবং নাইজেরিয়ার সরকারকে আহ্বান জানাই তারা যেন রাশিয়াকে বলে এই আগুন নিয়ে খেলা বন্ধ করে এবং বেসামরিকদের চলে যাওয়ার অনুমতি দেওয়ার জন্য আবেদন করেন তিনি। কুলেবা বলেছিলেন যে ভারত সহ সমস্ত দেশ, যারা রাশিয়ার সাথে বিশেষ সম্পর্ক উপভোগ করে, তারা রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি ভ্লাদিমির পুতিনের (Vladimir Putin) কাছে আবেদন করতে পারে যে এই যুদ্ধ সকলের স্বার্থের বিরুদ্ধে। সংঘাতের সমাপ্তি সমস্ত দেশের সর্বোত্তম স্বার্থে যুক্তি দিয়ে, তিনি বলেন, ভারত ইউক্রেনীয় কৃষি পণ্যের অন্যতম বৃহৎ ভোক্তা এবং এই যুদ্ধ চলতে থাকলে, আমাদের জন্য নতুন ফসলের বীজ বপন করা কঠিন হবে৷ তাই, এমনকি বৈশ্বিক এবং ভারতীয় খাদ্য নিরাপত্তার ক্ষেত্রেও, এই রাশিয়া ইউক্রেন যুদ্ধ (Russia Ukraine war) বন্ধ করাই সর্বোত্তম স্বার্থে।

তিনি আরও সাধারণ ভারতীয়দের প্রতি আহ্বান জানান রাশিয়ার ওপর চাপ সৃষ্টি করতে তাদের কাছে যুদ্ধ বন্ধের দাবি। ইউক্রেন যুদ্ধ করছে কারণ আমরা আক্রমণ করেছি এবং আমাদের আমাদের ভূমি রক্ষা করতে হবে কারণ পুতিন আমাদের অস্তিত্বের অধিকারকে স্বীকৃতি দেয় না। কুলেবা দাবি করেছেন যে মানবিক করিডোর এবং যুদ্ধবিরতি বিদ্যমান নেই কারণ রাশিয়ান বাহিনী মানবিক করিডোর ব্যবস্থা করার জন্য সকালে উপনীত চুক্তি লঙ্ঘন করেছে। আমরা বিদেশী ছাত্র সহ বেসামরিক নাগরিকদের সরিয়ে নেওয়ার অনুমতি দেওয়ার জন্য গুলি বন্ধ করার জন্য রাশিয়াকে অনুরোধ করছি।

আরও জানতে পড়ুন – আর নয় যুদ্ধ: শরণার্থী পরিচয়ে জন্ম নিয়েছে বিশ্বের ১০ লক্ষাধিক শিশু

 এদিকে প্রধানমন্ত্রী মোদীর (pm modi) নেতৃত্বে ভারত অপারেশন গঙ্গার অধীনে ৬৩টি ফ্লাইটে এ পর্যন্ত প্রায় ১৩,৩০০ জনকে ইউক্রেন থেকে ভারতে ফিরে এনেছে, বিদেশমন্ত্রক শনিবার বলেছে, গত ২৪ ঘন্টার মধ্যে ১৫টি ফ্লাইট প্রায় ২৯০০টি জন ফিরে এসেছে। একটি দৈনিক ব্রিফিংয়ে, ভারতের এমইএ আধিকারিক মুখপাত্র অরিন্দম বাগচি বলেছেন: গত ২৪ ঘন্টার মধ্যে ১৫টি ফ্লাইট অবতরণ করেছে প্রায় ২৯০০জন অপারেশন গঙ্গার অধীনে ৬৩টি ফ্লাইটে এ পর্যন্ত প্রায় ১৩৩০০জন ভারতে ফিরে এসেছেন৷ পরবর্তী ২৪ টির জন্য ১৩টি ফ্লাইট নির্ধারিত হয়েছে৷
রাশিয়া-ইউক্রেনের যুদ্ধের ফলে ভারতে বাড়তে পারে ঘাটতি। চলতি আর্থিক বর্ষ অর্থাৎ ২০২১-২২ সালে বিভিন্ন ধরনের দ্রব্যের ঘাটতি প্রায় ৬০০ আরব আমেরিকান ডলার পার করে যেতে পারে। চলতি আর্থিক বর্ষের শুরুতে এর পরিমাণ ছিল ৪৯২.৯ আরব আমেরিকান ডলার। এর থেকেই পরিষ্কার যে রাশিয়া-ইউক্রেনের যুদ্ধ কীভাবে ঘাটতি বাড়াতে পারে। বিশ্ব বাজারে বেড়ে চলেছে তেলের দাম। এর প্রভাবও ভারতে পড়তে পারে।

ক্রুড অয়েলের ক্ষতি –

রাশিয়া-ইউক্রেনের যুদ্ধের (Russia Ukraine war) ফলে ক্রুড ওয়েলের দাম তেজ গতিতে বেড়ে চলেছে। ক্রুড ওয়েলের দাম পৌঁছে গিয়েছে ব্যারেল প্রতি ১০০ ডলার। এর ফলে ভারতের মাথায় এর বোঝা এসে চাপবে। কারণ ভারত (india) তেলের অধিকাংশই আমদানি করে থাকে। ভারতের মাথায় চাপতে পারে প্রায় এক লাখ কোটি টাকার বোঝা। কারণ বেড়ে যাওয়া তেলের দামেই ভারতকে তেল ক্রয় করতে হবে। রিপোর্ট অনুযায়ী এই যুদ্ধ যদি বেশ কিছুদিন ধরে চলে তাহলে ভারতের (india) অনেকটাই ক্ষতি হতে পারে। আগামী আর্থিক বর্ষে ভারত সরকারের রাজস্বে প্রায় ৯৫ হাজার কোটি টাকা থেকে ১ লাখ কোটি টাকার ক্ষতি হতে পারে।

প্রতি মাসে প্রায় ৮,০০০ কোটি টাকার রাজস্ব ক্ষতি –

জাপানি কোম্পানি নোমুরা জানিয়েছে যে, রাশিয়া-ইউক্রেনের যুদ্ধে (Russia Ukraine war) এশিয়ার মধ্যে সবথেকে বেশি ক্ষতি ভারতের। স্টেট ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়ার আর্থিক বিশেষজ্ঞ সৌম্যকান্তি ঘোষের রিপোর্ট অনুযায়ী, ২০২১ সালের নভেম্বর মাস থেকেই কাঁচা তেলের দাম ক্রমাগত হারে বেড়ে চলেছে। এখন রাশিয়া-ইউক্রেনের যুদ্ধের ফলে এই দাম আরও বাড়তে পারে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.