Russia Ukraine War: ইউক্রেনের মেলিটোপোলের মেয়র অপহৃত, গর্জে উঠলেন জেলেনস্কি

Home বিদেশ-বিভূঁই Russia Ukraine War: ইউক্রেনের মেলিটোপোলের মেয়র অপহৃত, গর্জে উঠলেন জেলেনস্কি
Russia Ukraine War: ইউক্রেনের মেলিটোপোলের মেয়র অপহৃত, গর্জে উঠলেন জেলেনস্কি

বঙ্গভূমি লাইভ ডেস্ক: রাশিয়া ইউক্রেন যুদ্ধে (Russia Ukraine war) বিধ্বস্ত ইউক্রেন ছাড়ার প্রবণতা তুঙ্গে। এই অবস্থায় এবার দক্ষিণ ইউক্রেনের মেলিটোপোলের মেয়রকে শুক্রবার রাশিয়ান সৈন্যরা অপহরণ করেছে। প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি এবং ইউক্রেনের অন্যান্য কর্মকর্তারা একথা জানিয়েছেন।

রাশিয়া ইউক্রেন যুদ্ধের (Russia Ukraine War) আবহে ইউক্রেনের পার্লামেন্ট টুইটারে বলেছে, ১০ জনের একটি দল মেলিটোপোলের মেয়র ইভান ফেডোরভকে অপহরণ করেছে। তারা আরও জানিয়েছে যে, তিনি শত্রুকে সহযোগিতা করতে অস্বীকার করেছিলেন।

তারা জানিয়েছে যে মেয়র যখন সরবরাহের সমস্যা সমাধানের জন্য শহরের সংকট কেন্দ্রে ছিলেন তখন তাঁকে আটক করা হয়েছিল। শুক্রবার একটি ভিডিও বার্তায়, রাশিয়া ইউক্রেন যুদ্ধে (Russia Ukraine war) বিধ্বস্ত দেশ থেকে জেলেনস্কি অপহরণের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন, ফেডোরভকে একজন মেয়র যিনি সাহসের সঙ্গে ইউক্রেন এবং তার সম্প্রদায়ের সদস্যদের রক্ষা করেন, বলে অভিহিত করেছেন তিনি।

তিনি আরও বলেন, এটি স্পষ্টতই আক্রমণকারীদের দুর্বলতার লক্ষণ… তারা সন্ত্রাসের একটি নতুন পর্যায়ে চলে গেছে যেখানে তারা বৈধ স্থানীয় ইউক্রেনীয় কর্তৃপক্ষের প্রতিনিধিদের নির্মূল করার চেষ্টা করছে।

রাশিয়ার ইউক্রেনে আগ্রাসন (russia’s invasion of Ukraine) একটি অপরাধ, শুধুমাত্র একটি নির্দিষ্ট ব্যক্তির বিরুদ্ধে নয়, একটি নির্দিষ্ট সম্প্রদায়ের বিরুদ্ধে এবং শুধুমাত্র ইউক্রেনের বিরুদ্ধে নয়। এটি গণতন্ত্রের বিরুদ্ধেই অপরাধ… রাশিয়ান আক্রমণকারীদের কর্মকাণ্ডকে ইসলামিক স্টেট সন্ত্রাসবাদীদের মতো করে বিবেচনা করা হবে। রাশিয়া ইউক্রেন যুদ্ধের (Russia Ukraine war) প্রভাব পড়েছে বিশ্বে।

ইউক্রেনের (Ukraine) প্রশাসনের উপপ্রধান, কিরিলো টিমোশেঙ্কো টেলিগ্রামে একটি ভিডিও পোস্ট করেছিলেন যেখানে সৈন্যরা কালো পোশাক পরা একজন ব্যক্তিকে ধরে একটি বিল্ডিং থেকে বেরিয়ে আসছে, তাঁর মাথা একটি কালো ব্যাগ দিয়ে আবৃত।

ইউক্রেনের (Ukraine) পার্লামেন্টের মতে, আরেক আঞ্চলিক কর্মকর্তা, মেলিটোপোলের ১২০ কিলোমিটার (৭৫ মাইল) উত্তরে জাপোরিঝিয়া-র আঞ্চলিক কাউন্সিলের উপ-প্রধানকে কয়েকদিন আগে অপহরণ করা হয়েছিল এবং তারপর ছেড়ে দেওয়া হয়।

রাশিয়া ইউক্রেন যুদ্ধের (Russia Ukraine war) আগে, মেলিটোপোলের মাত্র ১৫০,০০০ জন বাসিন্দা ছিল। প্রেসিডেন্ট ভ্লোদিমির জেলেনস্কি এই ঘটনাকে বর্বরোচিত এবং ভয়াবহ বলে উল্লেখ করেছেন। সেই সঙ্গে তাঁর অভিযোগ, আইএসআইএস সন্ত্রাসবাদীরা এই ঘটনার সঙ্গে যুক্ত।

রাশিয়া ইউক্রেন যুদ্ধভূমি (Russia Ukraine war) থেকে রাষ্ট্রপতি ভলদোমির জেলেনস্কি (President Volodymyr Zelensky) শুক্রবার সন্ধ্যায় একটি ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বলেন, রাশিয়া সন্ত্রাসকে এক অন্য মাত্রায় নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছে। প্রশাসনের কর্তাব্যক্তিদের শারিরীক ভাবে নিগ্রহের অভিযোগও তুলেছেন প্রেসিডেন্ট জেলেনস্কি। ইউক্রেনের পার্লামেন্ট একটি টুইট বার্তায় এই খবর নিশ্চিত করেছে। টুইট বার্তা পার্লামেন্টের তরফে জানানো হয়েছে ১০০ জনের একটি দল মেলিটোপোলের মেয়র ইভান ফেডোরভকে অপহরণ করেছে। রাশিয়া ইউক্রেনের যুদ্ধ প্রায় দুই সপ্তাহ অতিক্রান্ত। অনেকেই বলছিলেন যে, এবার ইউক্রেনে আগ্রাসণের বহর কমাচ্ছে মস্কো। জানা গিয়েছে, তিনি শহরের ক্রাইসিস সেন্টারে গিয়েছিলেন। সেখানে খাবার ও অন্যান্য প্রয়োজনীয় সামগ্রীর সরবরাহে কিছু সমস্যা দেখা দিয়েছিল, তা দূর করতেই গিয়েছিলেন। এমন সময়ই রুশ বাহিনী তাঁকে অপহরণ করে।

শুক্রবার রাতে একটি ভিডিয়ো বার্তায় ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভোলোদিমির জেলেনস্কিও অপহরণের কথা জানান। অপহৃত ইভান ফেডোরোভকে একজন সাহসী মেয়রের অ্যাখ্যা দেন প্রেসিডেন্ট। বলেন, উনি ইউক্রেন ও তাঁর নিজস্ব গোষ্ঠীর জন্য লড়াই চালাচ্ছেন।

প্রেসিডেন্ট জ়েলেনস্কি বলেন, এটা স্পষ্টতই বিরোধীদের দুর্বলতার প্রতীক… তারা সন্ত্রাসের এক নতুন পর্যায়ে পৌঁছেছে, যেখানে তারা স্থানীয় ইউক্রেনীয় প্রশাসনের প্রতিনিধিদেরই সরিয়ে ফেলার চেষ্টা করছে। মেলিটোপেলের মেয়রকে আটকে রাখা অপরাধ। এটা কেবল নির্দিষ্ট কোনও এক ব্যক্তি, কোনও জনগোষ্ঠী বা ইউক্রেনের বিরুদ্ধে অপরাধ নয়, বরং গোটা গণতন্ত্রেরই বিরুদ্ধে অপরাধ…. রাশিয়ান অনুপ্রবেশকারীদের আচার-আচরণকে ইসলামিক স্টেট জঙ্গিদের সমান বলে মনে করা হবে।

কিন্তু আদতে যে তা ঠিক নয় তা প্রমাণে মরিয়া রাশিয়া। তাই, ইউক্রেনে লড়াইয়ের জন্য এবার মধ্যপ্রাচ্যের স্বেচ্ছাসেবী যোদ্ধাদের পাঠানোর পরিকল্পনা করা হয়েছে। ইতিমধ্যেই তাতে সবুজ সংকেতও দিয়েছেন প্রেসিডেন্ট পুতিন।

সংবাদ সংস্থার দাবি, ইউক্রেনে মধ্যপ্রাচ্যের প্রায় ১৬ হাজার স্বেচ্ছাসেবক যোদ্ধাকে পাঠানো হতে পারে। রাশিয়ার ঘোষণা, যারা স্বেচ্ছায় রুশ সেনাদের সঙ্গে ইউক্রেনে যুদ্ধ করতে যেতে চায়, তাদের সাদরে আমন্ত্রণ জানানো হবে। রাশিয়ার প্রতিরক্ষামন্ত্রী সের্গেই শোইগু জানিয়েছেন, মধ্যপ্রাচ্যের ১৬ হাজার স্বেচ্ছাসেবক রাশিয়ার হয়ে ইউক্রেনে লড়তে প্রস্তুত রয়েছেন। এর মধ্যেই ন্যাটো ও ইউরোপীয় ইউনিয়নভুক্ত দেশগুলিকে নিশানা করেছে রাশিয়া। মস্কো বলেছে, ইউরোপীয় ইউনিয়ন ও ন্যাটো দেশগুলো রাশিয়ার প্রতি বন্ধুভাবাপন্ন নয়। ইউরোপীয় ইউনিয়ন কাউন্সিলে রাশিয়া বিরোধী দেশগুলির সংখ্যাগরিষ্ঠতার সুযোগ নিচ্ছে।

রুশ বিদেশমন্ত্রকের দাবি, ন্যাটোভুক্ত রাষ্ট্রগুলো কাউন্সিল অব ইউরোপ ধ্বংস করার উদ্দেশ্যে এবং ইউরোপের সাধারণ মানবাধিকার ও আইনি পরিস্থিতি ধ্বংস করতে তাদের কাজ চালিয়ে যাচ্ছে।

ইউক্রেনে হামলা জারি রয়েছে রাশিয়ার। রাশিয়ান বাহিনী ইউক্রেনের বন্দর শহর মারিউপোল বোমাবর্ষণ অব্যাহত রেখেছে। আম নাগরিকদের ওই শহর থেকে বার করতে মানবিক করিডর গঠনের আর্জি জানিয়েছেন ইউক্রেন। উপগ্রহ চিত্রে দেখা যাচ্ছে যে, শহরের উত্তরে আন্তোনোভ বিমানবন্দরের কাছে সাঁজোয়া ইউনিটগুলি রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.