বড়দিনের আগেই কলকাতায় নতুন মেয়র! শপথ ও বোর্ড গঠন ২৩ ডিসেম্বর, জানালেন মমতা

Home কলকাতা বড়দিনের আগেই কলকাতায় নতুন মেয়র! শপথ ও বোর্ড গঠন ২৩ ডিসেম্বর, জানালেন মমতা
বড়দিনের আগেই কলকাতায় নতুন মেয়র! শপথ ও বোর্ড গঠন ২৩ ডিসেম্বর, জানালেন মমতা

বঙ্গভূমি লাইভ ডেস্ক: বড়দিনের আগেই কলকাতা পাচ্ছে নতুন মেয়র। মেয়রের শপথ ও বোর্ড গঠনের জন্য  মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বেছে নিলেন তাঁর পছন্দের লক্ষ্মীবার। কলকাতা পুরভোটে দলের জয় নিশ্চিত করে পুরবোর্ড গঠনের দিন ক্ষণ ঘোষণা করে গেলেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। অসম সফরে যাওয়ার আগে সাংবাদিকদের মুখ্যমন্ত্রী বললেন, আগামী বৃহস্পতিবার অর্থাৎ ২৩ ডিসেম্বরই বোর্ড গঠন হবে নতুন পুরসভার।

কলকাতা পুরভোটে নিরঙ্কুশ জয়ের ঘোষণা শুধুই সময়ের অপেক্ষা। তার আগে কালিঘাটের বাড়িতে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়েছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সাংবাদিকদের তিনি জানালেন, আগামী ২৩ তারিখ বোর্ড গঠন হবে নতুন পুরসভার। ওই দিন দুপুর দুটোর সময় শপথ নেবেন নতুন মেয়র।

তবে কলকাতার নতুন মেয়র কে হচ্ছেন, তা নিয়ে নগরবাসীর কৌতূহল জিইয়ে পরাখলেন তিনি। যদিও মঙ্গলবার দিনভর কলকাতার প্রাক্তন মেয়র ফিরহাদ হাকিমের তৎপরতা বুঝিয়ে দিয়েছে, হয়ত নিজের ছেড়ে আসা আসনে , আবার তিনিই বসতে চলেছেন।

তবে এটা নেহাত জল্পনা নয়। কারণ তৃণমূলের জয় নিশ্চিত হতেই, নতুন বোর্ডের কর্মপদ্ধতি নিয়ে বেশ কিছু কথা সাংবাদিকদের জানান ফিরহাদ হাকিম। তিনি বললেন, ‘দেখুন মানুষ আমাদের দু’হাত তুলে আশির্বাদ করেছেন। এত বড় জয় তৃণমূল এর আগে কোনওদিন পায়নি। বিধানসভা ভোটের নিরিখেও আমাদের জয়ের ব্যবধান অনেকটা বেড়েছে। সুতরাং যত বড় জয় হবে, মানুষের প্রতি আরও বেশি করে দায়বদ্ধ হব আমরা। তাঁদের মানুষের প্রত্যাশা পূরণে দিনরাত খাটতে হবে। মানুষের প্রতি দায়বদ্ধতা আমাদের ধর্ম।’

নতুন করে বোর্ড গঠনের পর কোন কোন বিষয়ে জোর দেবে তৃণমূল? তা নিয়ে ফিরহাদ হাকিম বললেন, ‘আমাদের মূল কাজ হবে এডিবির কাজ গুলি দ্রুত শেষ করা। ২০০ নতুন পাম্প বসানো হবে জল নামানোর জন্য। কলকাতায় বৃষ্টির চরিত্র পাল্টেছে অনেকটাই, সেই অনুসারে পুরো বিষয়টি পরিকল্পনা করতে হবে। বিশেষজ্ঞদের নিয়ে এসে ড্রেনেজ সিস্টেম বা নিকাশি ব্যবস্থার উন্নতি করা। কলকাতায় দূষণ কমানোও আমাদের অনেক বড় চ্যালেঞ্জ। এ ছাড়া একটা অন্যতম বিষয় আমরা নতুন বোর্ডের উপর দায়িত্ব দেব।’

ফিরহাদের কথামতো সেই নতুন বিষয়টি হল, ‘যে বোর্ডই আসুক, আমরা বছরে এক বার করে রিপোর্ট কার্ড জমা দেওয়ার কথা বলব। রিপোর্ট কার্ড দিতে হবে। সেখানে উল্লেখ করতে হবে, এক বছরে কী কী কাজের লক্ষ্যে আমরা এগিয়ে গেলাম, কী কী কাজ করলাম, এর একটি রিপোর্ট মানুষের সামনে পেশ করতে হবে, প্রমাণ দিতে হবে মানুষের কাছে।’

এত কিছু ঘোষণার পর তবে তিনিই কি মেয়র পদে ফিরছেন?মুখে কুলুপ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের স্নেহভাজন ববির।

Leave a Reply

Your email address will not be published.