সরকারি চাকরির আবেদন করেছেন? জাল ওয়েবসাইট সম্পর্কে সচেতন করল জাতীয় নিয়োগ সংস্থা (NRA)

সরকারি চাকরির আবেদন করেছেন? জাল ওয়েবসাইট সম্পর্কে সচেতন করল জাতীয় নিয়োগ সংস্থা (NRA)

বঙ্গভূমি লাইভ ডেস্ক: সারাদেশেই কর্মসংস্থানের চিত্রটা অনেকটা একই রকম। মেধা ও দক্ষতা থাকলেও উপযুক্ত চাকরি পাওয়া দুষ্কর, এমনটাই মনে করেন দেশের যুবসম্প্রদায়। এর পাশাপাশি করোনা পরবর্তী সময়ে একের পর এক বেসরকারি সংস্থা যেভাবে কর্মীদের ছেঁটে ফেলেছে, তাতে বেসরকারি চাকরির প্রতি অনেকেরই আস্থা উঠে গিয়েছে। অনেকেই তাই চাকরিক্ষেত্রে নিশ্চয়তা পাওয়ার আশায় সরকারি চাকরির (Govt. jobs) প্রস্তুতি নেওয়া শুরু করেছেন। তবে বেশিরভাগ চাকরিপ্রার্থীই মনে করেন সময়মতো সরকারি চাকরির পরীক্ষা ও নিয়োগের ক্ষেত্রে কেন্দ্র ও রাজ্যসরকারগুলির বিস্তর অনীহা রয়েছে।

সম্প্রতি অরবিন্দ কেজরীওয়ালের আম আদমি পার্টি পাঞ্জাবে ক্ষমতায় আসার পর প্রথম বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী ভগবন্ত মানের নেতৃত্বাধীন মন্ত্রিসভা বিভিন্ন সরকারি দফতরে ২৫ হাজার কর্মী নিয়োগের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। সরকারের বিভিন্ন দফতর, বোর্ড ও কর্পোরেশনগুলিতে কর্মী নিয়োগ করা হবে বলেই জানা যাচ্ছে। পাশাপাশি জানা গিয়েছে, পাঞ্জাব পুলিসে ১০ হাজার ও অন্যান্য দফতরে ১৫ হাজার কর্মী নিয়োগ করা হবে। আপ সরকার জানিয়েছে, এক মাসের মধ্যেই কর্মী নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত হবে। প্রসঙ্গত, শপথগ্রহণের পরই চাকরিক্ষেত্রে বদল আনার বার্তা দিয়েছিলেন পাঞ্জাবের নতুন মুখ্যমন্ত্রী ভগবন্ত মান। সদ্য শপথ নেওয়া পাঞ্জাব মন্ত্রিসভার তরফে প্রথম বৈঠকেই রাজ্যকে উন্নয়নের শীর্ষে নিয়ে যাওয়ার লক্ষ্যে একাধিক গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। ট্যুইটারে মুখ্যমন্ত্রী ভগবন্ত মান এই সিদ্ধান্তের কথা জানিয়ে লেখেন, ‘এক মাসের মধ্যে ২৫ হাজার কর্মী নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশকে অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা। নির্বাচনের আগেই আমরা প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলাম যে যুবদের কর্মসংস্থানকেই তৎপরতার সঙ্গে প্রাধান্য দেবে আম আদমি পার্টির সরকার’।

এক্ষেত্রে উল্লেখ্য, চাকরিপ্রার্থীদের সঙ্গে প্রতারণা করার জন্য বহু ভুয়ো ওয়েবসাইটে (Fake Website) চাকরির বিজ্ঞাপন দেওয়া হচ্ছে। বেশ কিছু সরকারি চাকরির ক্ষেত্রেও এই প্রবণতা দেখা যাচ্ছে। যোগ্য কর্মপ্রার্থীদের বারংবার এই ধরনের ভুয়ো ওয়েবসাইট এড়িয়ে চলার জন্য পরামর্শ দিয়েছে জাতীয় নিয়োগ সংস্থা (National Recruitment Agency)। বর্তমানে রাজ্য এবং কেন্দ্রীয় সরকারি চাকরির নিয়োগের ক্ষেত্রে অনলাইন আবেদন এবং পরীক্ষা বাধ্যতামূলক। আবেদন করার আগে কোন ওয়েবসাইট সঠিক তা যাচাই করে নেওয়ার পরামর্শ দিয়েছে জাতীয় নিয়োগ সংস্থা (NRA)। চাকরিপ্রার্থীদের জন্য বেশ কিছু জাল ওয়েবসাইটে ফাঁদ পাতা রয়েছে। এমন নিখুঁতভাবে প্রতারকরা সরকারি পরীক্ষার বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করছে, অধিকাংশ ক্ষেত্রে অনলাইন আবেদন করতে গিয়ে প্রতারণার শিকার হয়েছেন বহু কর্মপ্রার্থী। প্রতারকরা যাবতীয় তথ্য নিয়েই কর্মপ্রার্থীদের সঙ্গে জালিয়াতি করছে। জাতীয় নিয়োগ সংস্থার (NRA) সম্পর্কে পুঙ্খানুপুঙ্খ তথ্য নিয়েই বিভিন্ন জাল ওয়েবসাইটের মাধ্যমে কর্মপ্রার্থীদের উদ্দেশ্য করে ফাঁদ পাতছে প্রতারকরা।

বেশ কিছুদিন আগে রাজ্য পুলিসের তরফে ভুয়ো নিয়োগের বেশ কিছু ওয়েবসাইট সনাক্ত করা হয়েছে। তদন্তের পর পুলিস সূত্রে জানানো হয়েছে, বিভিন্ন জাল ওয়েবসাইটে মিথ্যা সরকারি চাকরির টোপ দিয়ে লক্ষ লক্ষ টাকার প্রতারণা করা হয়েছে। উদাহরণস্বরূপ, দেশের একাধিক মেডিকেল কলেজে চাকরির বিজ্ঞপ্তি দেওয়া হয়েছিল জাল ওয়েবসাইটে। বেকার যুবকদের কাছ থেকে টাকা হাতিয়ে নেওয়ার জন্যই এই ওয়েবসাইটগুলি তৈরি করে দুষ্কৃতীরা। অধিকাংশ ক্ষেত্রেই দেখা যাচ্ছে শিক্ষিত ও অভিজ্ঞ কিছু মানুষ এই জাল ওয়েবসাইট তৈরি করে সরকারি চাকরির বিজ্ঞাপন দিচ্ছে। দেশের বিভিন্ন রাজ্যে এমনই কিছু ঘটনা ঘটেছে। তদন্তে নেমে পুলিস বেশ কিছু দুষ্কৃতীকে গ্রেফতার করেছে। কোটি কোটি টাকার প্রতারণা করা হয় এই জাল ওয়েবসাইটগুলি থেকে। তারপরেও দেশজুড়ে এই ধরণের জাল ওয়েবসাইটের রমরমা বেড়েই চলেছে।

এরকমই একটি জাল ওয়েবসাইটে খোদ ন্যাশনাল রিক্রুটমেন্ট এজেন্সির (NRA) নিয়োগ পরীক্ষার মাধ্যমে শূন্যপদের বিজ্ঞপ্তিও জারি করা হয়েছিল। জাল এই বিজ্ঞাপন ওয়েবসাইটে এবং ইউটিউবে ভিডিয়োর মাধ্যমে প্রকাশিত হয়। এর পাশাপাশি nra-govt.online নামে একটি জাল ওয়েবসাইট তৈরি করে প্রতারকরা। এই ঘটনা নজরে আসতেই ন্যাশনাল রিক্রুটমেন্ট এজেন্সির তরফে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। সমগ্র ঘটনার পুঙ্খানুপুঙ্খ তদন্ত করে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছেন সংস্থার প্রধান। এই ঘটনার পর জাতীয় নিয়োগ সংস্থা (NRA) এখনও তাঁদের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট চালু করতে পারেনি।

অন্যদিকে এই ঘটনা নজরে আসার পরেই জাতীয় নিয়োগ সংস্থার (NRA) পক্ষ থেকে কর্মপ্রার্থী এবং সাধারণের উদ্দেশে বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়েছে। সংস্থার তরফে স্পষ্টভাবে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, সাধারণ মানুষ এবং সরকারি কর্মপ্রার্থীরা এই ধরনের জাল ওয়েবসাইট ও বিজ্ঞপ্তি থেকে যেন অবশ্যই সতর্ক থাকে। সরকারি চাকরির বিজ্ঞপ্তি দেওয়া বিভিন্ন ওয়েবসাইট ও ইউটিউব ভিডিও যাচাই করার পরামর্শও দেওয়া হয়েছে। জাতীয় নিয়োগ সংস্থার (NRA) মাধ্যমে স্টাফ সিলেকশন কমিশন (SSC), রেলওয়ে রিক্রুটমেন্ট বোর্ড (RRB) এবং ইনস্টিটিউট অফ ব্যাঙ্কিং পার্সোনাল সিলেকশনের (IBPS) পরীক্ষা নেওয়া হয়। সরকারি চাকরির জন্য প্রাথমিক স্তরের বাছাই ও চূড়ান্ত পর্যায়ের বাছাই পর্বের পর নির্বাচিত প্রার্থীদের কমন এলিজিবিলিটি টেস্ট (CET) নেওয়ার দায়িত্বও দেওয়া হয়েছে এই সংস্থাকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.