দমকা হাওয়া ঘুড়ির সঙ্গে উড়িয়ে নিল মানুষকে, প্রাণ বাঁচাতে ৩০ ফুট উঁচু থেকে লাফ

Home বিদেশ-বিভূঁই দমকা হাওয়া ঘুড়ির সঙ্গে উড়িয়ে নিল মানুষকে, প্রাণ বাঁচাতে ৩০ ফুট উঁচু থেকে লাফ
দমকা হাওয়া ঘুড়ির সঙ্গে উড়িয়ে নিল মানুষকে, প্রাণ বাঁচাতে ৩০ ফুট উঁচু থেকে লাফ

বঙ্গভূমি লাইভ ডেস্ক: বন্ধুদের নিছক আনন্দ শুধু নিরানন্দই নয় মুহূর্তের মধ্যে প্রাণ করেড়ে নেওয়ার উপক্রম করেছিল।  ঘুড়ি ওড়াতে গিয়েই যত বিপত্তি। ঘটনাস্থল শ্রীলঙ্কা।

বন্ধুরা মিলে ঢাউস সাইজের ঘুড়ি বানিয়েছিল। সেটি ওড়ানোর বন্দোবস্তও করে সকলে মিলে। কিন্তু সেই আনন্দের মুহূর্ত এক লহমায় আতঙ্কে পরিণত হল।
হাওয়ার বেগের সঙ্গে তাল মিলিয়ে সকলে মিলে ঘুড়ির সুতো ছাড়তে শুরু করেন। ঘুড়িও একটু একটু করে উড়তে শুরু করেছিল আকাশপানে। কিন্তু হঠাৎই দমকা হাওয়ার জেরে ঘুড়িটি এত দ্রুত উপরের দিকে উড়তে শুরু করে যে মাটিতে দাঁড়ানো মানুষদের টাল সামলানোই দায় হয়ে ওঠে। বাকিরা সুতো ছেড়ে দিলেও এক বন্ধু প্রাণের বাজি ধরে গাওয়ার মুখে দাঁড়ি তখনও সুতো ছেড়ে যাচ্ছিলেন। ফলে তাকে নিয়েই উড়তে শুরু করে ঘুড়িটি। একটা সময় সেই সুতো ধরে উড়তে উড়তে ৩০ ফুট উচ্চতায় পৌঁছে যান ওই ব্যক্তি। ভয়ঙ্কর সেই ভিডিও প্রকাশ্যে এসেছে।

ভাইরাল ভিডিও-য় দেখা যাচ্ছে এক ব্যক্তি ঘুড়ির সুতো ধরে ঝুলছেন আর প্রাণপণ  বাঁচার চেষ্টা করছেন। বন্ধুরা চিৎকার করে তাঁকে বলছেন আরও উপরে ওঠার আদে যেন ঘুড়ির সুতোটা ছেড়ে দেন। কিন্তু এতটা উচ্চতায় উঠে গিয়েছিলেন যে তার পক্ষে সেই সুতো ছেড়ে দেওয়া মানে মরণঝাঁপ দেওয়া। কিন্তু শেষমেশ প্রাণ বাঁচাতে সাহসে ভর করেই, ঘুড়ির সুতো ছেড়েই মাটিতে লাফ মারেন তিনি। তবে ওই যে কথায় আছে, ‘রাখে হরি মারে কে!’ বরাতজোরে বেঁচেও গিয়েছেন তিনি।

শ্রীলঙ্কার জাফনার পেড্রো পয়েন্টে চলছিল ‘তাই পোঙ্গল’ নামে ঘুড়ি উৎসব। সেই প্রতিযোগিতায় অংশ নেওয়ার জন্য ছয় বন্ধু মিলে বিশাল একটি ঘুড়ি বানিয়ে তারই মহড়া দিচ্ছিলেন। কিন্তু মহড়াতেই যা শিক্ষা হল, প্রতিযোগিতার মূল পর্ব পর্যন্ত যেতে আর সাহস দেখালেন না তাঁরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published.