দিল্লিতে তাড়া করে কোপানো হল দশম শ্রেণির চার ছাত্রকে, অভিযুক্তরাও স্কুল ছাত্রই

Home দেশের মাটি দিল্লিতে তাড়া করে কোপানো হল দশম শ্রেণির চার ছাত্রকে, অভিযুক্তরাও স্কুল ছাত্রই
দিল্লিতে তাড়া করে কোপানো হল দশম শ্রেণির চার ছাত্রকে, অভিযুক্তরাও স্কুল ছাত্রই

বঙ্গভূমি লাইভ ডেস্ক: দেশে কিশোরদের মধ্যে অপরাধমস্কতা যে বেড়েই চছে তার সাক্ষী থাকল দিল্লি। এক স্কুলের দশম শ্রেণির চারজন ছাত্রকে ছুরি দিয়ে কোপাল, অন্য স্কুলের ছাত্ররা। আকস্মিক হামলায় আক্রান্ত চারজনই জখম হয়েছে,তবে একজনের অবস্থা গুরুতর।

পুলিস জানিয়েছে, তাদের কাছে অভিযোগ আসে চার বন্ধু পরীক্ষাকেন্দ্র থেকে বেরোতেই তাদের উপর ছুরি নিয়ে হামলা হয়েছে। তাদের উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসার পর তিন জনকে ছেড়ে দেওয়া হলেও বাকি এক জনের ট্রমা কেয়ারে চিকিৎসা চলছে।

ঘটনার সূত্রপাত শনিবার সকালে পূর্ব দিল্লির ময়ূর বিহার এলাকায়। ওই এলাকায় সর্বোদয় বাল বিদ্যালয়ে পরীক্ষা দিতে গিয়েছিল দশম শ্রেণির চার পড়ুয়া। পরীক্ষা শেষে তারা একসঙ্গেই পরীক্ষাকেন্দ্রের বাইরে আসে। কিন্তু আঁচ করতে পারেনি, বাইরেই তাদের অপেক্ষায় রয়েছে হামলাকারীরা। চার জন স্কুল চত্বরের বাইরে পা রাখতেই  তাদের ঘিরে ধরে হামলাকারীরা। তখন বিপদ আন্দাজ করতে পেরেই চার বন্ধু স্কুল লাগোয়া পার্কের দিকে ছুটে যায়। তাদের তাড়া করতে থাকে হামলাকারীরা। সেখানেই তাদের উপর ছুরি নিয়ে হামলা চালানো হয় বলে অভিযোগ।

প্রত্যক্ষদর্শী এক ছাত্র জানিয়েছে, পার্কের মধ্যে হাতহাতি হতে দেখে বেশ কয়েক জন ছাত্র সে দিকে ছুটে যায়। কিন্তু তত ক্ষণে হামলাকারীদের ছুরির আঘাতে চারজনই রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে রয়েছে। অভিযুক্তদের ধরতে তাদের পিছনে ধাওয়া করা হয়। কিন্তু ততক্ষণে দুষ্কর্ম সেরে তারা নাগালের বাইরে চলে গিয়েছিল। স্কুলের অন্য ছাত্ররাই, জখম চার জনকে তুলে নিয়ে গিয়ে লালবাহাদুর শাস্ত্রী হাসপাতালে ভর্তি করায়।

পাণ্ডব নগর থানার পুলিস জানিয়েছে, ছাত্রদের মধ্যে মারামারির বিষয়টি জানিয়ে তাদের কাছে তিন বার ফোন যায়। তড়িঘড়ি ঘটনাস্থলে থানা থেকে একটি দল পৌঁছয়। কিন্তু তত ক্ষণে হামলাকারীরা পালিয়ে গিয়েছিল। পূর্ব দিল্লির পুলিস কমিশনার জানিয়েছেন, আহতদের সকলের বয়স ১৫-১৬-র মধ্যে। পুরনো কোনও শত্রুতার জেরেই এই ঘটনা কিনা, তা তদন্ত সাপেক্ষ। পাশাপাশি অভিযুক্তদের চিহ্নিত করার জন্য ওই এলাকার সমস্ত সিসিটিভি ফুটেজ খতিয়ে দেখারও কাজ শুরু হয়েছে। তবে প্রাথমিক ভাবে পুলিসের সন্দেহ হামলাকারীরা সর্বোদয় বাল বিদ্যালয়েরই ছাত্র।

Leave a Reply

Your email address will not be published.