মদন মিত্রের পরিবারের বিরুদ্ধে বধূ নির্যাতনের অভিযোগ, ‘বাঁচতে চাই’! সোশ্যাল মিডিয়ায় বিস্ফোরক পুত্রবধূ

Home কলকাতা মদন মিত্রের পরিবারের বিরুদ্ধে বধূ নির্যাতনের অভিযোগ, ‘বাঁচতে চাই’! সোশ্যাল মিডিয়ায় বিস্ফোরক পুত্রবধূ
মদন মিত্রের পরিবারের বিরুদ্ধে বধূ নির্যাতনের অভিযোগ, ‘বাঁচতে চাই’! সোশ্যাল মিডিয়ায় বিস্ফোরক পুত্রবধূ

বঙ্গভূমি লাইভ ডেস্ক: এবার মদন মিত্রের পরিবারের বিরুদ্ধে বধূ নির্যাতন ও প্রাণে মারার হুমকির মতো বিস্ফোরক অভিযোগ। আর এই অভিযোগ আনলেন কামারহাটির বিধায়ক মদন মিত্রের বড় ছেলে স্বরূপ মিত্রের স্ত্রী স্বাতী রায়। স্বাতী স্বামীর বিরুদ্ধে  চরম মানসিক এবং শারীরিক নির্যাতনের অভিযোগ এনেছেন। এদিন ফেসবুকে স্বামী ও শ্বশুরবাড়ির বিরুদ্ধে মুখ খোলেন স্বাতী। ফেসবুকে ভিডিও আপলোড করে মিত্র পরিবারের বিরুদ্ধে একাধিক বিস্ফোরক অভিযোগ করলেন তিনি।

শনিবার ফেসবুকে আপলোড করা ভিডিওতে, মদন মিত্রর বড় পুত্রবধূ হিসেবে পরিচয় দেওয়া স্বাতী রায়কে বলতে শোনা গেছে,  ‘আমি এক কাপড়ে বাড়ি থেকে বেরিয়েছিলাম। ২০১৯-এ মায়ের কাছে থেকে যাওয়ার সুযোগ পাই। ফিরে এলে মারধর করার হবে বলে হুমকি দিয়ে রাখে।…..আমার ভয় আছে, এই ভিডিও আপলোড হওয়ার পর, ওরা হয়ত আমাকে মেরে ফেলবে।…প্রচণ্ড মানসিক নির্যাতন করা হচ্ছে। এই মানসিক অত্যাচারে আমি মনে হচ্ছে পাগল হয়ে যাচ্ছি।’ জানা গিয়েছে, ২০১৪ সালে মদন মিত্রের বড় ছেলের সঙ্গে তাঁর বিয়ে হয়। বিয়ের পরেই চেনা মানুষটা বদলে যায়। ক্রমশ স্বামীর অত্যাচার বাড়তে থাকে, যার বিরুদ্ধে সুবিচার তিনি পাননি। প্রথমটায় শ্বশুর-শাশুড়ি বাধা দিলেও কোনও লাভ হয়নি। এরপর মানসিক ভাবে ভেঙে পড়তে থাকেন। তিনি দাবি করেছেন, প্রাণের ভয়ে শহর ছেড়ে চলে যেতে হচ্ছে তাঁকে।

এখানেই শেষ নয়, স্বাতী রায়ের দাবি, আলাদা থাকাকালীনও স্বামীর দ্বারা বারবার নির্যাতিত হয়েছেন। তাঁর আরও অভিযোগ, ‘এদের চাপে আমি আত্মহত্যার চেষ্টা করতে গিয়ে ফিরে আসি।কারণ সেটা ভুল ছিল।আমার একটা ছোট বাচ্চা আছে। ওর আমাকে দরকার। আমি বাঁচতে চাই। আমি মরতে চাই না। আমার পরিবারের লোকদের হুমকি দেওয়া হচ্ছে। আমি ওদের কোনও জিনিস নিইনি। আমার সব জিনিস ওদের কাছে।’ তাঁর দাবী, এই সমস্ত অভিযোগ সত্যি। কেউ প্রমাণ চাইলে ছবি এবং রেকর্ডিং সবই দেখাতে পারবেন।

পুত্রবধূর এই ভয়ঙ্কর অভিযোগের পর কামারহাটির তৃণমূল বিধায়ক মদন মিত্রর প্রতিক্রিয়া, ‘আমি শুধু এটুকু জানি ও বছর দেড়েক আগে বাড়ি ছেড়ে চলে গিয়েছে।’ পাশাপাশি তিনি বলেন,‘পরশু দিনও তো আমাদের দক্ষিণেশ্বরের বাড়ির ছাদে বাচ্চা নিয়ে খেলছিল। একটু খবর নিয়ে বলতে পারব।’

Leave a Reply

Your email address will not be published.