৩ জানুয়ারি থেকেই কলকাতায় শুরু ১৫ ঊর্ধ্বদের টিকা, জানালেন ফিরহাদ

Home কলকাতা ৩ জানুয়ারি থেকেই কলকাতায় শুরু ১৫ ঊর্ধ্বদের টিকা, জানালেন ফিরহাদ
৩ জানুয়ারি থেকেই কলকাতায় শুরু ১৫ ঊর্ধ্বদের টিকা, জানালেন ফিরহাদ

বঙ্গভূমি লাইভ ডেস্ক: ৩ জানুয়ারি থেকেই কলকাতায় শুরু হবে শিশুদের টিকাকরণ অভিযান। এর জন্য কলকাতা পুরসভার ১৬টি বরোর অন্তর্গত ১৬টি স্কুলকে টিকাকরণ কেন্দ্র হিসেবে চিহ্নিত করে সেইসব কেন্দ্র থেকে ১৫ ঊর্ধ্বদের করোনা ভ্যাকসিন দেওয়া শুরু হবে। কলকাতা পুরসভার ১৬টি বরোর ৫০টি স্কুল থেকে ১৫ ঊর্ধ্বদের ভ্যাকসিন দেওয়া হবে। কলকাতা পুরসভা সূত্রের খবর ১৫ থেকে ১৮ বছর বয়সীদের দেওয়া হবে কোভ্যাক্সিন। কলকাতায় ১৫ থেকে ১৮ বছর বয়সী আড়াই লক্ষ ছেলেমেয়ে কোভ্যাক্সিন প্রতিষেধক পেতে চলেছে। এছাড়া আরও সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে, ১০ জানুয়ারি ষাটোর্ধ্বদের দেওয়া হবে বুস্টার ডোজ।

করোনার পাশাপাশি রাজ্যে বাড়ছে ওমিক্রন আক্রান্তের সংখ্যা। স্বাস্থ্য দফতর সূত্রে খবর, বিদেশে না গিয়েও সংক্রমিত হয়েছেন আরও চারজন। রাজ্যের স্বাস্থ্য অধিকর্তা অজয় চক্রবর্তী জানিয়েছেন, পাঁচ ওমিক্রন আক্রান্তের মধ্যে কারও মৃদু উপসর্গ রয়েছে। কেউ কেউ উপসর্গহীন। পাঁচজনই রয়েছেন হোম আইসোলেশনে। স্বাস্থ্য দপ্তর সূত্রে খবর, সোমবার ২২৫টি এবং গতকাল ৭০০টি নমুনা ওমিক্রন পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়, যার রিপোর্ট এখনও আসেনি।

এদিকে কলকাতায় দৈনিক করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৭০০ পেরোতেই মেয়র ফিরহাদ হাকিম তড়িঘড়ি মেয়র পারিষদ এবং বিশেষজ্ঞদের সঙ্গে বৈঠকে বসেন। সেখানেই ছোটদের টিকাকরণ নিয়েও আলোচনা হয়।কবে, কোথায়, কীভাবে ১৫-১৮ বছর বয়সিরা টিকা পাবেন, তা নিয়ে বুধবারই সাংবাদিকদের বিস্তারিত তথ্য দিলেন কলকাতার মেয়র।

পুরসভার তরফে জানানো হয়েছে, ৩ জানুয়ারি থেকে ১৬টি বরোর ১৬টি স্কুলে ১৫-১৮ বছর বয়সিদের টিকাকরণ শুরু হবে। একইসঙ্গে টিকা মিলবে কলকাতার ৩৯টি মেগা সেন্টারেও। অর্থাৎ যেসব কেন্দ্র থেকে এতদিন কোভ্যাক্সিন দেওয়া হত। টিকা নেওয়ার ক্ষেত্রে কিশোর-কিশোরীদের আধার কার্ড বা স্কুল আইডি কার্ড নিয়ে আসা বাধ্যতামূলক বলে জানিয়ে দিলেন কলকাতার মেয়র। এর পর স্কুলগুলির আবেদনের ভিত্তিতে টিকাকরণ কর্মসূচির আয়োজন করা হবে। এ প্রসঙ্গে মেয়র পারিষদ অতীন ঘোষ জানিয়েছেন, ‘কলকাতায় মোট ৫৬৮টি স্কুল রয়েছে। প্রতিটি স্কুলে পর্যায়ক্রমে টিকাকরণ কর্মসূচি শুরু করা হবে।’

বুধবারের বৈঠক শেষে কলকাতার মেয়র ফিরহাদ হাকিম জানান, নিউ মার্কেট, বড়বাজার, গড়িয়াহাটের মতো জনবহুল এলাকাগুলিতে মাইকিং করে মানুষকে সচেতন করা হবে। কলকাতাবাসীকে কোভিডবিধি মেনে চলার আবেদনও জানান তিনি। এ প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে মেয়র আরও জানান, সচেতনতা বৃদ্ধি করতে লক্ষাধিক মাস্ক বিলি করবে পুরসভা। বড়দিন ও বর্ষবরণের পার্ক স্ট্রিটের মতো যেসমস্ত এলাকায় ভিড় জমবে সেখানে মাস্ক পরাও বাধ্যতামূলক। উৎসবমুখর জনতাকে সতর্ক করতে মাইকিং করা হবে বলেও পুরসভা সূত্রে খবর।

Leave a Reply

Your email address will not be published.