ওমিক্রনের দাপটে দেশে করোনার বাড়বাড়ন্ত, অধিকাংশ রাজ্যে ফিরছে কড়া কোভিডবিধি

Home দেশের মাটি ওমিক্রনের দাপটে দেশে করোনার বাড়বাড়ন্ত, অধিকাংশ রাজ্যে ফিরছে কড়া কোভিডবিধি
ওমিক্রনের দাপটে দেশে করোনার বাড়বাড়ন্ত, অধিকাংশ রাজ্যে ফিরছে কড়া কোভিডবিধি

বঙ্গভূমি লাইভ ডেস্ক: বর্ষশেষের উৎসবের আবহে দেশে বেশ কিছুটা বাড়ল করোনার দৈনিক সংক্রমণ৷ পাল্লা দিয়ে বাড়ছে ওমিক্রন আক্রান্তের সংখ্যাও। এই মুহূর্তে ভারতে ওমিক্রন আক্রান্ত ৭৮১জন। স্বাস্থ্যমন্ত্রক প্রকাশিত তথ্য অনুযায়ী গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে নতুন করে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৯,১৯৫ জন। একলাফে যা বাড়ল অনেকটা, মঙ্গলবারও দৈনিক সংক্রমণ ছিল ৬৩০০-র আশেপাশে। এর আগের দিন এই সংখ্যাটা ছিল ৬,৩৫৮৷ এ নিয়ে দেশে করোনা সংক্রমিতের সংখ্যা দাঁড়াল প্রায় সাড়ে তিন কোটি। গত ২৪ ঘণ্টায় মারা গিয়েছেন ৩০২ জন করোনা সংক্রমিত ৷

পাশাপাশি বাড়ছে ওমিক্রন৷ দেশে ওমিক্রন আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ৭৮১ হয়েছে।মঙ্গলবার এই সংখ্যাটা ছিল ৬৫৩। অর্থাৎ গত ২৪ ঘণ্টায় ১২৮ জন করোনার ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্টে সংক্রমিত হয়েছেন ৷ বুধবার করোনা সংক্রমিতদের ৫৯ শতাংশের শরীরেই করোনা স্ট্রেন ওমিক্রনের অস্তিত্ব মিলেছে বলে জানাচ্ছে স্বাস্থ্যমন্ত্রকের রিপোর্ট।

ওমিক্রনের দাপট রুখতে একাধিক রাজ্য নতুন করে কড়া কোভিডবিধির পথে হাঁটছে। দিল্লি, মুম্বইয়ের মতো জনবহুল শহরে জারি হয়েছে নাইট কারফিউ-সহ নানা নিষেধাজ্ঞা। পরিসংখ্যান বলছে, দিল্লিতে একদিনে ৭০ শতাংশ ও মুম্বইয়ে ৫০ শতাংশ লাফিয়ে বেড়েছে শুধু ওমিক্রনে আক্রান্তের হার। এই মুহূর্তে দিল্লিতে ওমিক্রন আক্রান্তের সংখ্যা ২৩৮। যা দেশের মধ্যে সর্বোচ্চ । এর জেরে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছেস্কুল,কলেজ,স্পা, জিম, পার্লার। জারি হলুদ সতর্কতা। বিয়েতে অতিথির সংখ্যা বেঁধে দেওয়া হয়েছে ২০-তে। এছাড়া যানবাহন চলাচলের ক্ষেত্রে সাবধানী কেজরিওয়াল সরকার। মেট্রোয় ৫০ শতাংশ যাত্রী যাতায়াত করতে পারবেন। শপিং মল ও দোকানবাজারের ক্ষেত্রে জোড়-বিজোড় নীতি ফেরানো হয়েছে।

ওমিক্রনের দাপট রুখতে ভ্যাকসিনের প্রিকশন ডোজ বা বুস্টার ডোজ দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছেন প্রধানমন্ত্রী। নতুন বছরের শুরু থেকেই এই টিকাকরণের কাজ শুরু হবে। প্রথমার্ধ্বে ষাট বছরের বেশি কোমর্বিডিটি সম্পন্ন নাগরিকদের বুস্টার ডোজ দেওয়া হবে। এই ডোজ পাবেন করোনাযুদ্ধের প্রথম সারিতে থাকা স্বাস্থ্যকর্মীরাও। আবার ১৫ থেকে ১৮ বছর বয়সিদেরও ভ্যাকসিন দেওয়া হবে আগামী ৩ জানুয়ারি থেকে। সবমিলিয়ে, টিকাকরণ প্রক্রিয়ায় আরও জোর দিয়ে করোনার নয়া স্ট্রেনের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে এগিয়ে যেতে মরিয়া ভারত।

Leave a Reply

Your email address will not be published.