এখনও ‘উপদ্রুত’ নাগাল্যান্ড! বিতর্কিত আফস্পার মেয়াদ আরও ছ’মাস বাড়াল কেন্দ্র

Home দেশের মাটি এখনও ‘উপদ্রুত’ নাগাল্যান্ড! বিতর্কিত আফস্পার মেয়াদ আরও ছ’মাস বাড়াল কেন্দ্র
এখনও ‘উপদ্রুত’ নাগাল্যান্ড! বিতর্কিত আফস্পার মেয়াদ আরও ছ’মাস বাড়াল কেন্দ্র

বঙ্গভূমি লাইভ ডেস্ক: পূর্বোত্তর রাজ্যগুলিতে সেনাবাহিনীকে দেওয়া বিশেষ ক্ষমতা আফস্পা তুলে নেওয়ার দাবি দীর্ঘদিনের। তা আরও জোরালো হয় ডিসেম্বরের শুরুতে, জঙ্গি সন্দেহে সেনাবাহিনীর কমান্ডোদের গুলিতে ১৩ জন সাধারণ মানুষের মৃত্যুর পর থেকেই। কিন্তু সাধারণ মানুষের দাবিকে পুরোপুরি অগ্রাহ্য করে লাগাল্যান্ডে আরও ৬ মাস বাড়িয়ে দেওয়া হল  সেনার বিশেষ অধিকার আইন বা আফস্পার মেয়াদ।

এখনই আফস্পা প্রত্যাহার করা হবে কি না তা নিয়ে গতসপ্তাহেই বৈঠকে বসেছিলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। কিন্তু সেনাবাহিনীর বিশেষ ক্ষমতা ফিরিয়ে নেওয়ার বদলে কেন্দ্র মনে করছে ‘এখনও উপদ্রুত ও বিপজ্জনক অবস্থায়’ আছে নাগাল্যান্ড। তাই সেখানে আরও ছ’মাসের জন্য আর্মড ফোর্সেস স্পেশাল পাওয়ারস অ্যাক্ট, ১৯৫৮ বা আফস্পা জারি থাকা প্রয়োজন। সেখানে অসামরিক শক্তির সাহায্যে এখনও সশস্ত্র বাহিনীর সাহায্যের প্রয়োজন আছে বলেই স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের ধারণা।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ‘কেন্দ্রীয় সরকার মনে করে যে, নাগাল্যান্ড রাজ্যটি এমন একটি উপদ্রুত এবং বিপজ্জনক অবস্থায় রয়েছে যে অসামরিক শক্তির সহায়তায় সশস্ত্র বাহিনীর ব্যবহার প্রয়োজন রয়েছে’।

উল্লেখ করা যেতে পারে, ৪ ডিসেম্বর নাগাল্যান্ডের মন জেলায় জঙ্গি সন্দেহে, অসম রাইফেলসের গুলি ও পরবর্তী হিংসাত্মক পরিস্থিতিতে নিহত হন ১৩ জন নিরীহ নাগরিক৷ আহত হন ১১ জন ৷ এরপর ফের বিতর্ক তৈরি হয় আফস্পা নিয়ে৷ মুখ্যমন্ত্রী নেইফিউ রিও, এই আইন প্রত্যাহারের দাবি জানান কেন্দ্রীয় সরকারকে৷ ২০ ডিসেম্বর নাগাল্যান্ডের বিধানসভায় সর্বসম্মতিক্রমে এই আইন প্রত্যাহার নিয়ে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়৷ সেখানকার স্থানীয় কিছু মানবাধিকার সংগঠন এ নিয়ে বিক্ষোভ দেখিয়েছে। পথে নামেন সাধারণ মানুষ।

এমনকী নাগাল্যান্ড সরকারের সঙ্গেই মণিপুর সরকারও কেন্দ্রের কাছে আরজি জানিয়েছে, যাতে এই বিতর্কিত আইন প্রত্যাহার করা হয়।কিন্তু কাজের কাজ কিছুই হল না। বৃহস্পতিবার কেন্দ্রের তরফে বিবৃতি জারি করে জানিয়ে দেওয়া হল, আজ থেকে আগামী ছ’মাসও নাগাল্যান্ড ‘উপদ্রুত এলাকা’ হিসাবে চিহ্নিত থাকবে। এবং সেখানে আফস্পা জারি থাকবে।

উল্লেখ্য ১৯৫৮ সালে উত্তর-পূর্বে বলবৎ করা হয় এই বিতর্কিত আইন ৷ উত্তর-পূর্ব ভারত থেকে সেনাবাহিনীর বিশেষ ক্ষমতাপ্রত্যাহারের দাবি আজকের নয়, দীর্ঘ সময়ের। সাধারণ নাগরিকের নিরাপত্তার নামে সেনাবাহিনী তাঁদের উপর অকথ্য নির্যাতন করে বলে প্রায়শয়ই অভিযোগ ওঠে। নয়ের দশক থেকে অসম, নাগাল্যান্ড-সহ উত্তরপূর্ব ভারতের প্রায় সবকটি রাজ্য ‘উপদ্রুত এলাকা’ হিসাবে চিহ্নিত করে সেখানে সেনাবাহিনীর বিশেষ ক্ষমতা প্রয়োগ করার অধিকার দিয়েছে কেন্দ্র। প্রতি ছ’মাস অন্তর অন্তর এই আফস্পার মেয়াদ বৃদ্ধি হয়। নাগাল্যান্ড রাজ্যের স্বীকৃতি পেয়েছে ১৯৬৩ সালে ৷ তাই এই রাজ্যের জন্মলগ্ন থেকে সেখানে এই আইন বহাল রয়েছে ৷

নাগাল্যান্ডে সেনার গুলিতে ১৩ জন নাগরিকের মৃত্যুর পর যেভাবে আফস্পা প্রত্যাহারের দাবি উঠছে, তাতে এ বছর এই মেয়াদ বৃদ্ধির আগে কেন্দ্র ভেবে দেখবে বলেই মনে করা হচ্ছিল। কিন্তু কোনওরকম চিন্তাভাবনায় না গিয়ে আগের মতোই ফের বাড়িয়ে দেওয়া হল এই বিতর্কিত আইনের মেয়াদ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.