আফস্পা প্রত্যাহারের লক্ষ্যে শাহি পদক্ষেপ! গঠিত হল প্যানেল, রিপোর্টের ভিত্তিতে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত

Home দেশের মাটি আফস্পা প্রত্যাহারের লক্ষ্যে শাহি পদক্ষেপ! গঠিত হল প্যানেল, রিপোর্টের ভিত্তিতে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত
আফস্পা প্রত্যাহারের লক্ষ্যে শাহি পদক্ষেপ! গঠিত হল প্যানেল, রিপোর্টের ভিত্তিতে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত

বঙ্গভূমি লাইভ ডেস্ক: নাগাল্যান্ডে ডিসেম্বরের শুরুতেই, জঙ্গি সন্দেহে সেনাবাহিনীর কমান্ডোদের গুলিতে ১৩ জন সাধারণ মানুষের মৃত্যুর পরে নতুন করে জোরাল হয়েছে আফস্পা প্রত্যাহারের দাবি। পথে নামেন সাধারণ মানুষ। তবে কি নাগাল্যান্ড থেকে প্রত্যাহার করে নেওয়া হবে সেনাবাহিনীর বিশেষ ক্ষমতা ? কারণ এ বিষয়ে এবার তৎপর হয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ স্বয়ং।

এই প্রেক্ষিতে রবিবার নাগাল্যান্ড সরকারের তরফে জানিয়ে দেওয়া হল, আফস্পা প্রত্যাহার নিয়ে রাজ্যবাসীর দাবি খতিয়ে দেখতে একটি প্যানেল গঠন করা হবে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের ডাকা বৈঠকেই এই সিদ্ধান্ত হয়েছে।প্যানেলের সদস্যদের ৪৫ দিনের মধ্যে রিপোর্ট দিতে হবে। কমিটিতে থাকবেন কেন্দ্র ও রাজ্য সরকারের প্রতিনিধিরা।

রবিবার একটি বিবৃতিতে নাগাল্যান্ড প্রশাসনের তরফে জানানো হয়েছে, গত ২৩ ডিসেম্বর একটি বৈঠক করেন অমিত শাহ। সেই বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী নেইফু রিও, উপমুখ্যমন্ত্রী ওয়াই প্যাটন, অসমের মুখ্যমন্ত্রী তথা উত্তর-পূর্বে বিজেপি-র সবচেয়ে প্রভাবশালী নেতা হিমন্ত বিশ্বশর্মা প্রমুখ।

ওই বৈঠকেই আফস্পা প্রত্যাহার নিয়ে আলোচনা হয়। তারপরই ঠিক হয় বিষয়টি খতিয়ে দেখতে নতুন কমিটি গঠিত হবে। কমিটির নেতৃত্বে থাকবেন উত্তর-পূর্ব ভারতের জন্য নিযুক্ত স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের অতিরিক্ত সচিব। কমিটির সদস্য হিসেবে থাকবেন নাগাল্যান্ড পুলিসের ডিজিপি ও রাজ্যের মুখ্য সচিব। ৪৫ দিনের মধ্যে কমিটিকে রিপোর্ট পেশ করতে হবে বলে বিবৃতিতে জানানো হয়েছে। সেই রিপোর্টের ভিত্তিতেই নাগাল্যান্ড থেকে বিতর্কিত আফস্পা প্রত্যাহার নিয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

প্রসঙ্গত, গত সোমবার বিতর্কিত ওই আইন প্রত্যাহারের দাবিতে প্রস্তাব পেশ হয় নাগাল্যান্ড বিধানসভায়। এর আগে মেঘালয়ের মুখ্যমন্ত্রী কনরাড সাংমাও প্রকাশ্যে বিতর্কিত আফস্পা প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছিলেন। অবশেষে সেই নিয়ে বৈঠকের পর কমিটি গঠনের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হল। তাৎপর্যপূর্ণ বিষয় হল  নেফিউ এবং কনরাড সাংমা দু’জনেই বিজেপি নেতৃত্বাধীন এনডিএ-এর সদস্য।

উত্তর-পূর্বের রাজ্যগুলি থেকে সেনাবাহিনীর জন্য জারি বিশেষ ক্ষমতা বা আফস্পা প্রত্যাহারের দাবি দীর্ঘদিনের। আর এই বিশেষ ক্ষমতার অপব্যবহার করে সাধারণ নাগরিকের উপর নির্যাতন চালানো হয় বলে, সেনার বিরুদ্ধে প্রায়ই অভিযোগ ওঠে।

নয়ের দশক থেকে অসম, নাগাল্যান্ড-সহ উত্তরপূর্ব ভারতের প্রায় সবকটি রাজ্য ‘উপদ্রুত এলাকা’ হিসাবে চিহ্নিত করে সেখানে সেনাবাহিনীর বিশেষ ক্ষমতা প্রয়োগ করার অধিকার দিয়েছে কেন্দ্র। একই পরিস্থিতি মনিপুরেও। সেখানেও আফস্পা প্রত্যাহারের দাবিতে নেত্রী ইরম শর্মিলা চানু দীর্ঘদিন ধরে আন্দোলন করেছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.