থামছে না বিতর্ক: ইউক্রেনে ভারতীয় ডাক্তারি পড়ুয়াদের (Ukraine to study) প্রহ্লাদ যোশীর অপমানের জের

Home দেশের মাটি থামছে না বিতর্ক: ইউক্রেনে ভারতীয় ডাক্তারি পড়ুয়াদের (Ukraine to study) প্রহ্লাদ যোশীর অপমানের জের
থামছে না বিতর্ক: ইউক্রেনে ভারতীয় ডাক্তারি পড়ুয়াদের (Ukraine to study) প্রহ্লাদ যোশীর অপমানের জের

বঙ্গভূমি লাইভ ডেস্ক: ইউক্রেনে (Ukraine) সেই ছেলেমেয়েরাই মেডিক্যাল পড়তে ছোটে, যাদের ভারতের মেডিক্যাল প্রবেশিকা পরীক্ষায় সফল হওয়া বা পাশ করার যোগ্যতাই নেই। রাশিয়া-ইউক্রেনের সংঘাতের (Russia- Ukraine) সংঘাতের মধ্যে পড়ে যখন সে দেশে পড়তে যাওয়া (Ukraine to study) ভারতীয় ছেলেমেয়েরা বিপন্ন অবস্থায় দেশে ফেরার দিন গুণছে , ঠিক তখনই এমনই এক অসময়োচিত এবং বিতর্কিত মন্তব্য করে বসলেন কেন্দ্রীয় সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী প্রহ্লাদ যোশী (Union Minister)।  প্রহ্লাদ যোশীর কথায়, যারা বিদেশে পড়তে যায় সেই পড়ুয়াদের ৯০ শতাংশই ভারতে ডাক্তারির প্রবেশিকা পরীক্ষা ন্যাশনাল এলিজিবিলিটি কাম এন্ট্রান্স টেস্টে (NEET) ফেল করে।

তবে এই দায়িত্বজ্ঞানহীন মন্তব্য যে বিস্তর বিতর্কের উৎস তা সম্ভবত বুঝেই কেন্দ্রীয় মন্ত্রী প্রহ্লাদ যোশীর (Union Minister) পরের মন্তব্য, পড়ুয়ারা কেন চিকিৎসা বিষয়ে অধ্যয়নের জন্য বাইরে চলে যাচ্ছে তা নিয়ে বিতর্ক করার সময় এটা নয়। রাশিয়া-ইউক্রেন (Russia- Ukraine) যুদ্ধের জের এবার সরাসরি ভারতের উপর পড়েছে। পরদেশের যুদ্ধ কেড়ে নিয়েছে ভারতের এক মেধাবী তরুণকে! ইউক্রেনের দ্বিতীয় বৃহত্তম শহর খারকিভে গোলাগুলির মধ্যে পড়ে প্রাণ হারিয়েছেন ২১ বছর বয়সী চতুর্থ বর্ষের মেডিক্যাল পড়ুয়া কর্নাটকের নবীন শেখরাপ্পা। আর সেই ভারাক্রান্ত আবহেই দেশের এক গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রীর মুখে এমন অসংবেদনশীল কথা মেনে নিতে পারছেন না কেউই।

এই স্পর্শকাতর মুহূর্তে কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর (Union Minister) এই অসংলগ্ন কথাকে তুরুপের তাস করেছে কংগ্রেস। বর্ষীয়ান কংগ্রেস নেতা রণদীপ সিং সুরজেওয়ালার প্রতিক্রিয়া, ‘মোদি সরকার ২০,০০০ বাচ্চাকে নিজের ভরসায় ছেড়ে দিয়েছে, দায়িত্ব থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে এবং ইউক্রেনে যাওয়া ভারতীয় পড়ুয়াদের (Ukraine to study) নিন্দা ও অপমান করছে। শুধুমাত্র ফটো অপ চলছে, কোনো অ্যাকশন নেই। এটা লজ্জাজনক, এটা অসংবেদনশীলতা এবং ক্ষমতার অহংকার। ওই বাচ্চাদের কাছে এবং তাঁদের পরিবারের কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করুন।’ সুরজেওয়ালা প্রধানমন্ত্রীকে বিঁধে প্রশ্ন করেন, সরকারের ‘অসংবেদনশীলতার’ কারণে যারা তাদের সন্তানকে হারাচ্ছেন, সেই মৃতদের আত্মীয়দের প্রধানমন্ত্রী কী বলবেন?

যোশীর উদ্দেশে আরেক কংগ্রেস নেতা নভজ্যোতু পট্টনায়েকের মন্তব্য, ‘তাহলে যোশীজি, আপনি কি বলতে চাইছেন এই কারণেই ইউক্রেনে আমাদের আটকে পড়া মেডিক্যাল পড়ুয়াদের নিরাপদে ভারতে ফিরে আসার অধিকার নেই?’

বেশ কিছুদিন ধরেই রাহুল গান্ধি, প্রিয়াঙ্কা গান্ধিরা ইউক্রেনে আটকে পড়া ভারতীয় পড়ুয়াদের ভিডিও ট্যুইট করে সরকারের উপর চাপ বাড়াচ্ছিলেন। এর মাঝে নবীনের মৃত্যুতে আরও চাপে পড়েছে কেন্দ্র। যদিও পরিস্থিতি সামাল দেওয়ার চেষ্টা চলছে। বাকি ভারতীয়দের দ্রুত দেশে ফেরানোর কাজ চলছে। এরই মাঝে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী (Union Minister)  যখন বললেন, বিদেশে মেডিক্যাল পাঠরত ৯০ শতাংশ ভারতীয় এখানে কোয়ালিফাইং পরীক্ষা (nta neet) পাশ করতে পারেন না, তখন তাতে রাজনীতির রং লাগা তো অনিবার্য।

উল্লেখ্য, বিদেশের কলেজ থেকে যাঁরা মেডিক্যাল ডিগ্রি নিয়ে দেশে ফেরেন, তাঁদের ভারতে চিকিৎসক হিসাবে স্বীকৃত হতে বা প্র্যাকটিসের অধিকার পেতে ফরেন মেডিক্যাল গ্র্যাজুয়েটস এক্স্যামিনেশনে (Foreign Medical Graduates Examination) সফল হতেই হয়। আর সেই পরীক্ষা পাশ করলে তবেই ভারতে তাঁরা চিকিৎসক হিসাবে স্বীকৃতি পেতে পারেন। কেন্দ্রীয় মন্ত্রী (Union Minister) প্রহ্লাদ যোশীর দাবি, বিদেশ থেকে এমবিবিএস পাশ করে এসে এই ‘ফরেন মেডিক্যাল গ্র্যাজুয়েট এক্স্যামিনেশন’ নামের পরীক্ষাও পাশ করতে গিয়ে বহু পরীক্ষার্থীই আটকে যাচ্ছেন।

উল্লেখ করা যেতে পারে, রাশিয়ার সেনা অভিযানের পর ইউক্রেনের রাজধানী কিভ-সহ একাধিক শহরে আটকে পড়েছে বহু ভারতীয় পড়ুয়া৷ হামলার আগে সেখানে অন্তত ২০ হাজারের কাছাকাছি ভারতীয় পড়ুয়া ছিল৷ এদের অধিকাংশই ডাক্তারি পড়তে ইউক্রেনে গিয়েছে৷ যার পরই এত বিপুল সংখ্যায় ছাত্র-ছাত্রীদের ডাক্তারি পড়তে ভারত থেকে বিদেশে যাওয়া নিয়ে আলোচনা শুরু হয়ে যায়৷

দিল্লির কাছে তাঁদের আবেদন, যত দ্রুত সম্ভব দেশে ফিরিয়ে আনা হোক। অনেকেই কাতর কণ্ঠে জানাচ্ছেন, সীমান্তে পৌঁছানোর ট্রেনেও উঠতে দেওয়া হচ্ছে না তাঁদের। শারীরিক নির্যাতনের শিকার হচ্ছেন. এমনকী ট্রেন থেকে তাঁদের ফেলেও দেওয়া হচ্ছে বলে অভিয়োগ করছেন প্রবাসী পড়ুয়াদের অনেকেই। ফলে বাধ্য হয়ে অনেকেই হিমাঙ্কের নিচে চলে যাওয়া তাপমাত্রা উপেক্ষা করে, নিরন্ন-তৃষ্ণার্ত অবস্থায় শ্রান্ত-ক্লান্ত শরীরটাকে সীমান্তের উদ্দেশ্যে মাইলের পর মাইল হাঁটতে বাধ্য হচ্ছেন।

একদিকে যখন ইউক্রেন থেকে ভারতীয়দের ফিরিনে আনার ব্যপারে সক্রিয় তৎপরতার অভাবে বিরোধীদের বাণে বিদ্ধ হচ্ছে মোদি সরকার,তখন চুপ করে বসে নেই সোশ্যাল মিডিয়াও। নেটিজেনদের একটা অংশের মতে, নিটের (neet result 2021) পরেও  এখানে আসন সংখ্যা কম বলেই সুযোগ না পেয়ে প্রত্যাশীরা বাইরে চলে যান ডাক্তারি পড়তে৷

আবার কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর (Union Minister) স্বরেই নিটে (neet 2021) সুযোগ না পাওয়ার মতো বিদ্রুপে সায় দিয়েছেন। বিদেশে ডাক্তারি পড়তে যাওয়া ছাত্রদের পাশে দাঁড়াতে, অনেকে সামনে এনেছেন, ভারতে রোগী-চিকিৎসক অনুপাতের উদ্বেগজনক ছবিও। বহু নেট নাগরিকের অকাট্য যুক্তি, এখানে সিট না পেয়ে বিদেশ থেকে যদি ছাত্রছাত্রীরা ডাক্তার হয়ে না আসত, তবে এই ছবি আরও করুণ হত।

Leave a Reply

Your email address will not be published.