বন্ধ হলো ‘বচ্চন পাণ্ডে’-র শো, সিনেমাহলে শুধুই ‘দ্য কাশ্মীর ফাইলস’ (The Kashmir Files) চালানোর দাবি

Home জলসাঘর বন্ধ হলো ‘বচ্চন পাণ্ডে’-র শো, সিনেমাহলে শুধুই ‘দ্য কাশ্মীর ফাইলস’ (The Kashmir Files) চালানোর দাবি
বন্ধ হলো ‘বচ্চন পাণ্ডে’-র শো, সিনেমাহলে শুধুই ‘দ্য কাশ্মীর ফাইলস’ (The Kashmir Files) চালানোর দাবি

বঙ্গভূমি লাইভ ডেস্ক: গত কয়েকদিন ধরেই বিবেক অগ্নিহোত্রী পরিচালিত ‘দ্য কাশ্মীর ফাইলস’ (The Kashmir Files) চলচ্চিত্রটি তোলপাড় তুলেছে গোটা ভারতবর্ষে। নব্বইয়ের দশকে একের পর এক কাশ্মীরি পণ্ডিতদের কীভাবে হত্যা করা হয়েছিল, তা এই চলচ্চিত্রের মাধ্যমে দেখাতে চেয়েছেন পরিচালক। শুরুর দিন থেকেই বক্সঅফিসে ঝড় তুলে কয়েক কোটি টাকার ব্যবসা করেছে ‘দ্য কাশ্মীর ফাইলস’ (The Kashmir Files)। এই চলচ্চিত্র প্রদর্শনের জন্য বাড়াতে হয়েছিল স্ক্রিন সংখ্যাও। এবার অক্ষয় কুমার অভিনীত ‘বচ্চন পাণ্ডে’ চলচ্চিত্রের পরিবর্তে সিনেমাহলে শুধুমাত্র ‘দ্য কাশ্মীর ফাইলস’-ই দেখাতে হবে, এমন দাবিই শোনা গেলো ওড়িশার সম্বলপুরে।

গত শুক্রবারই প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পেয়েছে ফারহাদ সামজি পরিচালিত ‘বচ্চন পাণ্ডে’ (Bachchan Pandey) চলচ্চিত্র। এমন সময় চলচ্চিত্রটি মুক্তি পেয়েছে, যখন গোটা দেশ জুড়েই রমরমিয়ে চলছে ‘দ্য কাশ্মীর ফাইলস’ (The Kashmir Files)। এই চলচ্চিত্রের জন্য আগেই প্রায় ৪০০ থেকে ৫০০টি স্ক্রিন হাতছাড়া হয়েছে ‘বচ্চন পাণ্ডে’-র। এবার পুরোপুরি বন্ধই হয়ে গেলো অক্ষয় কুমার অভিনীত চলচ্চিত্রের শো। জানা গিয়েছে, সোমবার সম্বলপুরে ‘বচ্চন পাণ্ডে’ চলচ্চিত্রের শো চলাকালীন হঠাৎই ‘ভারত মাতা কি জয়’ (Bharat mata ki jay), ‘জয় শ্রী রাম’ (Jai shree ram) ধ্বনি দিতে দিতে একটি মাল্টিপ্লেক্সে একদল লোক ঢুকে পড়ে। সেখানে ঢুকেই অক্ষয় কুমারের চলচ্চিত্র বন্ধ করার নির্দেশ দেয় তারা। সিনেমাহল কর্তৃপক্ষ ‘বচ্চন পাণ্ডে’ চলচ্চিত্রের শো বন্ধ না করলে সিনেমাহলে ভাঙচুর চালাবে, এমন হুমকিও দেয় তারা। মাল্টিপ্লেক্সে শুধুমাত্র বিবেক অগ্নিহোত্রীর চলচ্চিত্রই দেখাতে হবে, এমনটাই দাবি করে সেই ব্যক্তিরা।

সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে সেই ভিডিও। পরে সেই দুষ্কৃতিবাহিনীর আক্রমণের জেরেই বন্ধ হয়ে যায় ‘বচ্চন পাণ্ডে’-র শো। পরে সেই মাল্টিপ্লেক্সের তরফ থেকে সংবাদমাধ্যমকে জানানো হয়, মাঝে মাঝেই দশ থেকে একশোজন ব্যক্তির দল এসে হাজির হচ্ছে সিনেমাহলে। তাদের মধ্যে কয়েকজন সিনেমা দেখলেও বাকিরা কোনও কারণ ছাড়াই ঝামেলা করছে সিনেমাহলে, এমনটাই জানিয়েছে সিনেমাহল কর্তৃপক্ষ। সিনেমা হলের লোকেদের সঙ্গেও সংঘাতে জড়াচ্ছে তারা। তাদের অভিযোগ, সিনেমাহল কর্তৃপক্ষ নাকি ইচ্ছে করে কিছু দৃশ্য বাদ দিয়ে দিয়েছে। এই বিষয়টিকে কেন্দ্র করে সিনেমাহলের কর্মীদের সঙ্গে হাতাহাতিতেও জড়িয়ে পড়ে দুষ্কৃতীরা।

সোশ‍্যাল মিডিয়াতেও ‘বচ্চন পাণ্ডে’ চলচ্চিত্রটি বয়কট করার ডাক উঠেছে। ছবির মুখ‍্য চরিত্র গ‍্যাংস্টার বচ্চন পাণ্ডেকে নিয়েই অভিযোগ নেটিজেনদের একাংশের। আরো স্পষ্ট ভাবে বললে চরিত্রের নাম নিয়ে। হিন্দু ধর্মের কোনও ব‍্যক্তিকে কেন খারাপ ভাবে দেখানো হবে, তা নিয়েই প্রশ্ন উঠেছে। অনেকের মতে, বলিউডের চলচ্চিত্র পরিচালকেরা ইচ্ছাকৃতভাবেই হিন্দু ধর্মের ব্যক্তিদের ‘খলনায়ক’ হিসাবে দেখান। এখানেই শেষ নয়, ছবির একটি গানে কাশ্মীরের বৈষ্ণোদেবীর ভজনকে বিকৃত করা হয়েছে বলেও অভিযোগ উঠেছে। প্রশ্ন উঠেছে প্রযোজক সাজিদ নাদিয়াদওয়ালার ধর্ম নিয়েও। নেটনাগরিকদের একাংশের অভিযোগ, হিন্দু নাম দিয়ে গ‍্যাংস্টারদের মহিমান্বিত করার চেষ্টাই করা হচ্ছে বলিউড ইন্ডাস্ট্রিতে। ট্রেন্ডিংয়েও উঠে এসেছে হ‍্যাশট‍্যাগ বয়কট বচ্চন পাণ্ডে।

প্রসঙ্গত, বিবেক অগ্নিহোত্রী পরিচালিত চলচ্চিত্র ‘দ্য কাশ্মীর ফাইলস’ (The Kashmir Files) নিয়ে সরগরম গোটা দেশ। এই ছবি নিয়ে একই সঙ্গে প্রশংসা ও সমালোচনায় বিভক্ত সিনেমাপ্রেমীরা। কারুর মতে এটি নেহাতই বিজেপির প্রচারমূলক চলচ্চিত্র, কারুর মতে বিবেক অগ্নিহোত্রী অত্যন্ত সাহসিকতার সঙ্গে এই চলচ্চিত্র বানিয়েছেন, কারণ কাশ্মীর থেকে হিন্দু পণ্ডিতদের উৎখাত নিয়ে সেভাবে কখনই ছবি তৈরি করেননি বলিউডের কোনও পরিচালক। বিধু বিনোদ চোপড়া এই ঘটনা নিয়েই বানিয়েছিলেন শিকারা। কিন্তু প্রচারের আলো পায়নি সেই ছবি। আপাতত অনুপম খের, মিঠুন চক্রবর্তী, পল্লবী যোশী, দর্শন কুমার অভিনীত এই চলচ্চিত্র ‘দ্য কাশ্মীর ফাইলস’ নিয়ে তোলপাড় গোটা দেশ।

‘দ্য কাশ্মীর ফাইলস’ (The Kashmir Files) চলচ্চিত্রটি নিয়ে দেশজুড়ে বিতর্কও অব্যাহত। এর মাঝেই ‘দ্য কাশ্মীর ফাইলস’ চলচ্চিত্রটি নিয়ে মুখ খুললেন বিখ্যাত বলিউড অভিনেতা নানা পাটেকর। তিনি বলেছেন, ‘এই ধরনের একপেশে ছবির ক্ষেত্রে বিঘ্নিত হতে পারে দেশের সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির আবহ। ভারত হিন্দু ও মুসলিমের দেশ। দুই সম্প্রদায়ের মানুষই এখানে বসবাস করেন। তাই দুজনের জন্যই শান্তির পরিবেশ বজায় রাখা প্রয়োজন। সবাই যখন শান্তিতে রয়েছেন, তখন এমনভাবে খুঁচিয়ে ঘা করার দরকার কী? এভাবে বিবাদ তৈরি করা ঠিক নয়’। এছাড়াও ট্যুইটারে অভিনেতা আদিল হুসেন লিখেছেন, ‘সত্য অবশ্যই বলা উচিত! এতে কোনও সন্দেহ নেই। তবে, তা নম্রভাবে বলা প্রয়োজন। অন্যথায় সত্য কথনের উদ্দেশ্য তার সৌন্দর্যতা হারায়। যার প্রভাব প্রতিক্রিয়াশীল হতে পারে। আমরা অবশ্যই প্রতিক্রিয়াশীল সমাজ চাই না, দায়িত্ববান সমাজ চাই। শিল্পের কাজ কখনই প্রভাবিত করা নয়’। হিন্দিতে ছোটপর্দার জনপ্রিয় মুখ হিনা খান এক সাক্ষাৎকারে বলেছেন, ‘আমি এখনও ছবিটি দেখিনি। তাই ছবির বিষয়বস্তু না জেনে এই নিয়ে কোনও মন্তব্য করব না’। এরপরই তাৎপর্যপূর্ণ ভাবে তাঁর সংযোজন, ‘আমার ভাই ছবিটি দেখতে গিয়েছিল এবং তারপর সে ছবিটি সম্পর্কে নিজের প্রতিক্রিয়া আমার কাছে বর্ণনা করেছে’। ছবি চলাকালীন বিরতির সময় একটি নির্দিষ্ট রাজনৈতিক দলের কর্মীদের থিয়েটারের সামনে দলীয় পতাকা লাগাতে দেখা গিয়েছে বলেও জানিয়েছেন তিনি। যদিও বিখ্যাত বলিউড অভিনেতা আমির খান জানিয়েছেন, তিনি নিজে এখনও পর্যন্ত ‘দ্য কাশ্মীর ফাইলস’ না দেখলেও খুব শীঘ্রই এই চলচ্চিত্রটি দেখবেন। প্রত্যেক ভারতবাসীর এই চলচ্চিত্রটি দেখা উচিত বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

‘দ্য কাশ্মীর ফাইলস’ (The Kashmir Files) চলচ্চিত্রের আগে পরিচালক বিধু বিনোদ চোপড়া কাশ্মীরি পণ্ডিতদের হত্যার ঘটনা অবলম্বনেই বানিয়েছিলেন ‘শিকারা’ নামক একটি চলচ্চিত্র। কিন্তু প্রচারের অভাবে তা দর্শকদের কাছে সেভাবে পৌঁছতে পারেনি। কিন্তু প্রশংসা-বিতর্ক সব মিলিয়েই ‘দ্য কাশ্মীর ফাইলস’ চলচ্চিত্রটি পৌঁছে গিয়েছে দেশের প্রতিটি কোণায়, এমনটাই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published.