পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীর (Pakistan PM) গলায় ভারতের প্রশংসার সুর, ইমরানের কাণ্ডে অবাক দেশবাসী

Home দেশের মাটি পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীর (Pakistan PM) গলায় ভারতের প্রশংসার সুর, ইমরানের কাণ্ডে অবাক দেশবাসী
পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীর (Pakistan PM) গলায় ভারতের প্রশংসার সুর, ইমরানের কাণ্ডে অবাক দেশবাসী

বঙ্গভূমি লাইভ ডেস্ক: এ যেন একেবারে অত্যাশ্চর্য ঘটনা! ভারত এবং ভারতের বিদেশনীতির ভূয়সী প্রশংসা শোনা গেল পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের (Pakistan PM) গলায়। আস্থা ভোটের চ্যালেঞ্জের মুখে দাঁড়িয়ে ইমরানের এমন ভারত-স্তুতিতে অন্যরকম গন্ধ পাচ্ছে কূটনৈতিক মহল।

সম্প্রতি পাকিস্তানের মালাকান্দে একটি প্রকাশ্য সভায় যোগ দিয়েছিলেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান (Imran Khan)। সেখানেই ভারতের স্তুতি গেয়ে তিনি বলেন, ‘মে আজ হিন্দুস্তান কা দাদ দেনা চাতা হু।’ তাঁর কথায়, ‘আমি আজ ভারতের প্রশংসা করছি। কারণ, তারা সবসময়ই স্বাধীন বিদেশ নীতিতে বিশ্বাস রেখেছে।’ এই সভায় ইমরান খান (Pakistan PM) আরও বলেন, ‘ভারত কোয়াড অ্যালায়েন্সের সদস্য। একইভাবে সেখানকার সদস্য আমেরিকাও (USA)। কিন্তু তারপরেও ভারত নিজেকে নিরপেক্ষ পক্ষ হিসেবেই দাবি করে এসেছে। আবার এদিকে রাশিয়া (RUSSIA) থেকে তেল আমদানিও করছে ভারত। অথচ এই রাশিয়াই আমেরিকা ও পশ্চিমী দেশগুলির ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে। তবে ভারতের (India)  পক্ষে এটি করা সম্ভব হয়েছে কারণ, ভারতের বিদেশনীতি দেশবাসীর কথা ভেবেই বানানো হয়েছিল।’ সম্প্রতি পাকিস্তানের একটি সংবাদমাধ্যম ইমরান খানের (Pakistan PM) এই বক্তব্যকে উদ্ধৃত করে। তবে এই ঘটনা এই প্রথম নয়। চলতি বছরের প্রথম মাসেই ভারতের তথ্য ও প্রযুক্তির প্রশংসা করেছিলেন ইমরান খান (Imran Khan)

Imran Khan Praising India : Imran Khan Praises Indian Foreign Policy Says  India Is An Ally Of USA And Russia At The Same Time - इमरान खान ने बांधे  भारत की तारीफों

অক্সফোর্ডে প্রাক্তনী ইমরান সেইবার বলেছিলেন যে, তথ্য প্রযুক্তির ক্ষেত্রে ভারত যেভাবে বিপুল কর্মসংস্থান তৈরি করতে পেরেছে, তা নিঃসন্দেহে প্রশংসার যোগ্য। উল্লেখ্য, ইমরান খানের এই মন্তব্য নিয়ে ইতিমধ্যেই কাটাছেঁড়া শুরু হয়েছে। এক পক্ষের কথায়, যেখানে ইমরান খানের (Pakistan PM) নিজের নিজের আসনেরই এই মুহূর্তে কোনও নিশ্চয়তা নেই, সেই সময় দাঁড়িয়ে ভারতের মতো দেশের ভূয়সী প্রশংসার পেছনে নির্ঘাত কোনও কারণ রয়েছে।

উল্লেখ্য, আগামী ২৫ মার্চ পাকিস্তানে অনুষ্ঠিত হবে আস্থা ভোট। সেখানে ওই দেশের ন্যাশনাল অ্যাসেম্বলি-তে বিরোধীদের যৌথ দাবি মেনে নিজের সরকারের সংখ্যাগরিষ্ঠতা প্রমাণ করতে হবে ইমরান খানকে। পাকিস্তানের ন্যাশনাল অ্যাসেম্বলিতে এই মুহূর্তে সদস্যের সংখ্যা ৩৪২। সেখানে ইমরান খানের দলের অর্থাৎ পিটিআই-এর মোট সদস্য সংখ্যা ১৫৫ জন। যদিও নিজেদের ক্ষমতা অটুট রাখতে ইমরানের প্রয়োজন ১৭২ জন সদস্যের সমর্থন। এই মুহূর্তে পিটিআইয়ের ১৫৫ জন সদস্য ছাড়াও অন্যান্য আরও ছ’টি রাজনৈতিক দলের মোট ২৩ জন সদস্য সমর্থন করছেন ইমরানকে (Imran Khan)। তবে আগামী ২৫ মার্চের পরও এই হিসেব আদৌ একই থাকবে কীনা সেই নিয়েও উঠছে প্রশ্ন।

আরও জানা যাচ্ছে, পাকিস্তানের এই অনাস্থা ভোট নিয়ে যথেষ্ট চিন্তিত ইমরান খান (Imran Khan) । বিরোধীদের মতে, তিনি ভীতও বটে। কারণ, তাঁর নিজের দলের বহু সাংসদই তাঁর বিপক্ষে রয়েছেন। প্রসঙ্গত, সম্প্রতি একটি জনসভায় ইমরান খান বক্তৃতা দিতে গিয়ে বলেছিলেন, ঠিক ভারতের (India) মতোই তাঁর বিদেশনীতিও পাকিস্তানের জনগণের পক্ষেই থাকবে।

তবে এই মুহূর্তে বিভিন্ন জায়গায় আস্থা ভোটের জন্য নিজের জনসমর্থন সংগ্রহ করে চলেছেন ইমরান খান। এমনই একটি সভায় ভাষণ দিতে গিয়ে ইমরান বলেন, ‘আমি আজ পর্যন্ত কারও সামনে মাথা নত করিনি। আমার জাতিকেও মাথা নত করতে দেব না।’ সেই সভায় রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের প্রসঙ্গও টেনে আনেন ইমরান (Pakistan PM)। সেখানে তিনি বলেন, ইউরোপীয় ইউনিয়নের তরফে আনা পাক সমর্থনের আবেদন সরকার নাকচ করেছে। কারণ পাকিস্তান তার নিজেদের মূল্যবান সম্পদ হারাতে চায় না। সেই নিয়ে পাক প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, ‘আমরা এর আগে আফগানিস্তানে চলা সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে আমেরিকার (USA) যুদ্ধের অংশ হয়েছি। কিন্তু সেখানে ৮০ হাজার মানুষ এবং প্রায় ১০০ বিলিয়ন মার্কিন ডলার ক্ষতি হয়েছে আমাদের।’

Imran Khan can run his economy to the ground, but not that of his  neighbours | World News – India TV

ইমরানের ভারত-স্তুতির মন্তব্যের পরই এই নিয়ে মুখ খোলেন ভারতের বিদেশ সচিব হর্ষবর্ধন শ্রিংলা। সোমবার শ্রিংলা বলেন, ভারত (India) তার উদার বিদেশনীতির জন্য গোটা বিশ্বের প্রশংসা কুড়িয়েছে। তাই শুধুমাত্র একজনের প্রশংসা বললে সেটা মোটেই ঠিক হবে না। সাংবাদিকদের সামনে হর্ষবর্ধন আরও বলেন, শুধুমাত্র একজন ব্যক্তি আমাদের পররাষ্ট্রনীতির প্রশংসা করেছেন বললে ভুল বলা হবে। বরং আমাদের বহু বিদেশনীতি উদ্যোগের জন্য আমরা বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে প্রশংসা পেয়েছি। আমি মনে করি, আমাদের রেকর্ড নিজেই নিজের কথা বলে। তবে এই দিন তিনি শুধুমাত্র ইমরান খানই নয় বরং ভারতের প্রধানমন্ত্রী মোদির অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ভার্চুয়াল বৈঠকের কথাও বলেন তিনি। জানা গিয়েছে, এদিনের ভার্চুয়াল বৈঠকে দুই নেতা রাশিয়া (RUSSIA) এবং ইরানের যুদ্ধ এবং সেই সম্পর্কিত বিভিন্ন ইস্যু নিয়েও আলোচনা করেন। পাশাপাশি ভারত এবং অস্ট্রেলিয়ার সম্পর্ক নিয়েও আলোচনা হয় বলে সূত্রের খবর।

উল্লেখ্য, আরও একবার ইতিহাসের পুনরাবৃত্তি ঘটতে চলেছে পাকিস্তানের রাজনীতিতে। বলাই বাহুল্য, পাকিস্তানের কোনও প্রধানমন্ত্রীই (Pakistan PM) আজ পর্যন্ত তাঁর নিজের সম্পূর্ণ মেয়াদ শেষ করতে পারেননি। একইভাবে ইমরান খানকেও ক্ষমতা থেকে উৎখাত করার প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছে বিরোধী এবং তাঁর দলেরই কিছু সদস্য। আরও জানা যাচ্ছে, ইমরান খানের দলের অসন্তুষ্ট সাংসদরা ইসলামাবাদে জোট বেধেছে। সিন্ধু হাউজে আলাপ আলোচনা করতেও দেখা গিয়েছে তাঁদের। এই সিন্ধু হাউস সিন্ধুর সরকারি সম্পত্তি এবং বর্তমানে পাকিস্তান পিপলস পার্টি অর্থাৎ পিপিপি-এর পরিচালক-এর কাছে রয়েছে। প্রসঙ্গত, পাকিস্তানের সিন্ধু প্রদেশে সরকার রয়েছে পিপিপির।

Leave a Reply

Your email address will not be published.